চারটি দেশে ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্র চালু - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)

চারটি দেশে ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্র চালু

প্রকাশিত :২৮.০৭.২০১৬, ৯:০৭ অপরাহ্ণ
সারাবেলা ডেস্ক:
ভারত, মালয়েশিয়া ও স্পেনের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে “ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্র” প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে সেসকল বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউনূস সেন্টারের মধ্যে বৃহস্পতিবার সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। শুক্রবার থাইল্যান্ডের বৃহত্তম পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে একই উদ্দেশ্যে আরেকটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে।
এর ফলে প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূসের সাথে সম্পর্কিত বিশ্ব জুড়ে সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্র নেটওয়ার্কে কেন্দ্রের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৬-এ। ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্রগুলো ছাত্র ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নির্বাহীদের জন্য সামাজিক ব্যবসার উপর বিভিন্ন কোর্স প্রণয়ন ও প্রদান করা ছাড়াও সামাজিক ব্যবসার উপর গবেষণায় সহায়তা করে থাকে। সামাজিক ব্যবসার চর্চার সাথে জড়িত শিক্ষাবিদ, সামাজিক ব্যবসা উদ্যোক্তা ও ছাত্রদের মধ্যে যোগসূত্র স্থাপন ও সমন্বয়ের কাজও করে এই কেন্দ্রগুলো।
সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে একটি স্মারক স্বাক্ষরিত হয় ইউনূস সেন্টার ও ইউনিভার্সিটি সাইন্স মালয়েশিয়ার মধ্যে। তিনটি ক্যাম্পাস ও ৩০ হাজার ছাত্র নিয়ে পেনাংয়ে অবস্থিত এই বিশ্ববিদ্যালয়টি মালয়েশিয়ার অন্যতম বৃহত্তম শীর্ষস্থানীয় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েট স্কুল অব বিজনেসের ডীন প্রফেসর ড. আজলান আমরান ও প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন।
অপর একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয় ভারতের এসএসএম কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিং ও ইউনূস সেন্টারের মধ্যে। এছাড়া স্পেনের বার্সিলোনা নগরীতে একটি কেন্দ্রীয় ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বার্সিলোনার ৭টি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউনূস সেন্টারের মধ্যে আরেকটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।
চেন্নাইয়ের আনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সংযুক্ত এসএসএম কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিং তামিলনাডুর নেতৃস্থানীয় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলোর অন্যতম। কলেজটির প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ড. এম. এস. মাথিবনন এবং প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন।
স্পেনের বার্সেলোনায় যে ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্রটি প্রতিষ্ঠিত হতে যাচ্ছে তা বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ এ কারণে যে, বার্সিলোনার ৭টি বিশ্ববিদ্যালয় সম্মিলিতভাবে এই সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্রটি প্রতিষ্ঠা করছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হচ্ছে: ইউনিভার্সিটি পম্পেউ ফাবরা, ইউনিভার্সিটি অব বার্সিলোনা, অটোনমাস ইউনিভার্সিটি অব বার্সিলোনা, ইউনিভার্সিটি পলিটেকনিক অব ক্যাটালনিয়া, ওপেন ইউনিভার্সিটি অব ক্যাটালনিয়া, ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব ক্যাটালনিয়া, আবাত অলিবা ইউনিভার্সিটি এবং ইএডিএ ইউনিভার্সিটি ফাউন্ডেশন। ইএডিএ ইউনিভার্সিটি ফাউন্ডেশনের ড. এলিজাবেথ গারিগা ও প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস এই সম্মিলিত সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্রটি প্রতিষ্ঠার জন্য স্ব-স্ব পক্ষে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন।
এছাড়া থাইল্যান্ডের কাসেতসারত বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি ইউনূস সামাজিক ব্যবসা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে ইউনূস সেন্টারের সাথে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের জন্য উক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাঁচজন অধ্যাপকের একটি প্রতিনিধিদল শুক্রবার ঢাকা আসছেন। থাইল্যান্ডের বৃহত্তম এই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়টির ছাত্র সংখ্যা ৫০ হাজারের বেশী। ১৯৪৩ সালে প্রতিষ্ঠিত এই বিশ্ববিদ্যালয়টি থাইল্যান্ডের প্রথম  কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এবং দেশের তৃতীয় প্রাচীনতম বিশ্ববিদ্যালয়। কাসেতসারত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্কুলের ডীন প্রফেসর ইয়োদমানী তেপানন ও প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করবেন।