জাপানে উচ্চশিক্ষা

প্রকাশিত :১২.০৩.২০১৭, ৭:৪৭ অপরাহ্ণ

রাজা আবুল কালাম আজাদ:
সূর্যোদয়ের দেশ জাপান। প্রাচ্য সভ্যতার লীলাভূমি। পড়াশুনার মান ইউরোপের অধিকাংশ দেশের থেকেই উন্নত। নম্র, ভদ্র, ও শান্তশিষ্টদের এদেশে বিদেশী শিক্ষার্থীদের জন্যও রয়েছে স্বল্প খরচে বা একদম বিনামূল্যে পড়াশুনার সুযোগ।

১৯৫৪ সালে জাপান সরকার প্রতিষ্ঠা করে ‘Japanese Government Scholarship’ । জাপানের সরকারী এই স্কলারশীপের নাম Monbukagakusho: MEXT । MEXT এর অর্থ হলঃ The Ministry of Education, Culture, Sports, Science and Technology। এই Programme এর অধীনে দেশটিতে বর্তমানে প্রায় দশ হাজার বিদেশী ছাত্রছাত্রী পড়াশুনা করছেন ।
২০১৭ সনের জন্য স্কলারশীপের ঘোষনা হয়ে গেছে । নীচের সাইটে গেলেই দেখতে পাবে ।
http://www.mext.go.jp/…/afieldfile/2016/04/22/1369740_02.pdf

এই বিষয়ে আরো জানতে পারবে নীচের সাইটে গেলে ।
http://www.studyjapan.go.jp/en/toj/toj0302e.html
বাংলাদেশের যেসব শিক্ষার্থী কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন চার বছরের সম্মান সম্পন্ন করেছেন, তারাই আবেদনের যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। শুধুমাত্র মাস্টার্স ও পিএইচডি কোর্সের জন্য এ সুযোগ রয়েছে।
বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিমাসে দেওয়া হবে এক লাখ ৪৫ হাজার ইয়েন । বাংলাদেশ থেকে জাপান যাওয়া আসার জন্য থাকবে ফ্রি প্লেনের টিকেট ।
মজার কথা হলো TOEFL, IELTS, GRE না থাকলেও আবেদন করা যাবে এই মনবুকাগাকুশো বৃত্তির জন্য। তবে কিছুকিছু বিশ্ববিদ্যালয় English Certificate চায় ।

আসল কথা, এই স্কলারশীপটি পাওয়ার জন্য একজন জাপানিজ প্রফেসার ম্যানেজ করা লাগবে । অল্পকথায় তাকে বোঝাতে হবে যে, আপনি স্কলারশিপটির জন্য আবেদন করতে চান । এজন্য আপনার পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয় ও সংশ্লিষ্ট ডিপার্টমেন্টগুলোর অধ্যাপকদের সাথে ইমেইলে যোগাযোগ করতে হবে। ইমেইল এর সাবজেক্ট লিখবেনঃ Application for Japanese Government Scholarship (Monbukagakusho:MEXT)
একজন প্রফেসার ম্যানেজ হয়ে গেলে আর চিন্তা নাই । তিনিই আপনাকে ফর্ম পূরণ করতে বলবেন । কয়েকটা ডকুমেন্ট জমা দিতে হবে (সাইটে লেখা আছে) ।
আনন্দের কথা হলো বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর কয়েকশত শিক্ষার্থী এই স্কলারশীপের মাধ্যমে জাপান যাচ্ছে উচ্চশিক্ষার জন্য । স্কলারশীপটির আরো একটা ভাল দিক হলো, পৌছামাত্র ইন্টারন্যাশনাল হাউজে থাকার ব্যবস্থা আর সেই সাথে হাতখরচের জন্য কিছু টাকাও দেয়া হয় । নিজের পকেট থেকে কিছু লাগছে না বললেই চলে।
অতএব, আর দেড়ি নয়। জাপান যাদের স্বপ্ন, শুরু করে দিন অনুসন্ধান।