Lakshmipur_5_joner_Saja_News_pic_20

লক্ষ্মীপুরে পৃথক দুই মামলায় ৫ জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত :২০.০৩.২০১৭, ৫:০২ অপরাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : লক্ষ্মীপুরে স্বামী হত্যায় স্ত্রীসহ ৪ জন ও পৃথক একটি ধর্ষণ মামলায় আরও একজনসহ মোট ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে প্রত্যেকের ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও একবছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সোমবার দুপুর একটা থেকে ২টার মধ্যে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ড. আবুল কাশেম চৌধুরী পৃথক এ দুই মামলার রায় দেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ৮ সেপ্টেম্বর রায়পুর উপজেলার এনায়েতপুর গ্রামে শ্বশুর বাড়ির একটি বাগানে মো. রাব্বীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার পরদিন ৯ সেপ্টেম্বর নিহতের পিতা নুরুল আমিন পাটোয়ারী বাদী হয়ে রাব্বীর স্ত্রী, শ্বশুর, শাশুড়ীসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। গত ২৫ নভেম্বর পুলিশ ওই মামলার চার্জশিট আদালতে দাখিল করেন। বিজ্ঞ আদালত দীর্ঘ শুনানি শেষে আসামীদের প্রত্যেককে হত্যাকাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো একবছর করে কারাদণ্ডের আদেশ দেন। এ মামলায় সাজাপ্রাপ্তরা হলেন জয়নাল আবদীন, জোৎসনা আক্তার, রেজিয়া বেগম, মোহাম্মদ আলম।

এদিকে সদর উপজেলার পুর্ব বাঁঙ্গাখা ইউনিয়নে প্রতিবন্ধী এক যুবতীকে ধর্ষণের দায়ে টুটুল চন্দ্র দাস নামে এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন একই আদালত।

আদালত সুত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১৪ এপ্রিল সকালে সদর উপজেলার বাঁঙ্গাখা ইউনিয়নের শংকর চন্দ্র দাসের প্রতিবন্ধী মেয়েকে পুকুর পাড়ে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে টুটুল। এ ঘটনার পরে একই দিন বিকালে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে সদর থানায় টুটুল দাসের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত রায় দেন।

লক্ষ্মীপুর জজ কোর্টের পাবলিক প্রসেকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট জসীম উদ্দিন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। মামলায় পরিচালনায় আরো ছিলেন অ্যাডভোকেট রাসেল মাহমুদ মান্না এবং আসামী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন মঞ্জুর আহমেদ তিতু, হারুন ব্যাপারী প্রমুখ।