সলিমুল্লাহ খান
সলিমুল্লাহ খান

ইংরেজির শিক্ষকদের চেয়ে মাদ্রাসা শিক্ষকরা মেধাবী : সলিমুল্লাহ খান

প্রকাশিত :১৭.০৪.২০১৭, ৬:৪৮ অপরাহ্ণ

আজাদ সিরাজী : সাম্প্রতিককালে কওমী মাদ্রসা শিক্ষাকে স্বীকৃতিদানের পর থেকে সুশীল সমাজে চলছে সমালোচনা পর্যালোচনার বাহাস।

কেউ কেউ এ ‌’সিদ্ধান্তকে ভূল, বর্তমান সময়ের সাপেক্ষে অনুপযোগী’ বলে ব্যাখ্যা বিশ্লেষন দিচ্ছেন। কেউ কেউ আবার একে সময়োপয়োগী সিদ্ধান্ত বলে বাহবা দিচ্ছেন ।

এরই মধ্যে, ‌’ইংরেজি শিক্ষার শিক্ষকদের চেয়ে মাদ্রাসা শিক্ষকরা মেধাবী’ বলে মন্তব্য করে বোমা ফাটালেন, ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের শিক্ষক দার্শনিক অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খান।

তার দাবি, মাদ্রাসা শিক্ষার লোকেরা লেখাপড়া জানে না এমন প্রচারণা সঠিক নয়।

সলিমুল্লাহ খান চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন, আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ৫ জনও পাবেন না যে তাদের সঙ্গে (মাদ্রাসার শিক্ষক) যুক্তি-তর্কে পারবেন।

তিনি বলেন, ‘মাদ্রাসা শিক্ষা গ্রহণ করে অনেক বরেণ্য ব্যক্তিত্ব হয়েছেন আমাদের দেশে ও উপমহাদেশে রয়েছে। তাদের জ্ঞানের ভান্ডার ব্যাপক।

১২ এপ্রিল রাতে দীপ্ত টিভি আয়োজিত টকশোতে এসব কথা বলেন সলিমুল্লাহ খান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রুবায়েত ফেরদৌসের সঞ্চালনায় টকশোতে অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমান, অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান, সাংবাদিক অজয় দাসগুপ্ত প্রমুখ।

তার এ ধরণের মন্তব্যের পর সমালোচনায় ফেটে পরেছেন সুশীল সমাজের একাংশ ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো উপ-ভিসি অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান এ ধরণের মন্তব্যকে ‘অত্যুক্তি’ দাবি করে এ ধরণের মন্তব্য থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানান।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতেও তার মন্তব্য নিয়েও মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখানো হয়।

বিতর্কিত মন্বব্যের জন্য কেউ কেউ তাকে ‌’মৌলবাদের দালাল’, ‌’হেফাজতের পন্ডিত’ প্রভৃতি বলে সমালোচিত করেছে। অনেক মাদ্রাসা শিক্ষার্থী তার মন্বব্যে বাহবা দিয়েছেন।