image1496128540

ফের গোয়েন্দা কার্যালয়ে আপন জুয়েলার্সের মালিকরা

প্রকাশিত :৩০.০৫.২০১৭, ২:০৬ অপরাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : আদেশ পেয়ে আইনজীবীসহ ফের শুল্ক গোয়েন্দা দপ্তরে হাজির হয়েছেন আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ, তার ভাই

গুলজার আহমেদ ও আজাদ আহমেদ। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর কাকরাইলে শুল্ক গোয়েন্দা দপ্তরে ব্যবসায়িক কাগজপত্র নিয়ে হাজির হন তারা।

এর আগে গত ১৭ মে গোয়েন্দা দপ্তরে ব্যবসায়িক কাগজপত্র নিয়ে হাজির হয়েছিলেন দিলদার আহমেদ। তবে সেদিন তিনি কোন বৈধ কাগজপত্র

দেখাতে পারেননি বলে জানায় শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ। তাই ওইদিনই বৈধ কাগজপত্র দেখানোর জন্য সময় চেয়ে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের কাছে

১৫ দিনের সময় চায় আপন জুয়েলার্স কর্তৃপক্ষ। এরপর ১৫ দিন পার হলেও কোন প্রকার বৈধ কাগজপত্র জমা দিতে পারেননি তারা।

ওদিকে, গ্রাহকের মেরামতের জন্য রাখা গচ্ছিত স্বর্ণ হস্তান্তরে আপন জুয়েলার্সের পাঁচ শো-রুম থেকে ১৮২ জনের মধ্যে ৮৫ জনকে ২ কেজি ৩৩ গ্রাম

স্বর্ণালঙ্কার ফেরত দিয়েছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর।

বনানীর হোটেল রেইনট্রিতে দুই তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত সাফাত আহমেদের বাবা আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ।

ওই ঘটনার পর কাস্টমস কর্তৃপক্ষ আপন জুয়েলার্সের পাঁচটি শাখায় অভিযান চালায়। গত ১৪ ও ১৫ মে ‘সুনির্দিষ্ট অভিযোগের’ ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দারা আপন জুয়েলার্স থেকে প্রায় সাড়ে ১৩ মণ স্বর্ণ ও ৪২৭ গ্রাম হীরা আটক করে। আপন জুয়েলার্সের ৫টি শাখায় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের ৫টি দল অভিযান চালায়।

এখন পর্যন্ত মালিকপক্ষ এসব স্বর্ণ ও ডায়মন্ডের কোন বৈধ কাগজ দেখাতে পারেনি বলে জানিয়েছে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ।

শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ জানিয়েছে, আজ তাদের কাগজ-পত্র যাচাই করে সিদ্ধান্ত নেবেন।