papa

যাদের পেঁপে খেতে মানা

প্রকাশিত :০৬.০৬.২০১৭, ১২:৪৮ অপরাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : পেঁপে শুধু খেতেই মিষ্টি এবং সুস্বাদু নয়, বরং পুষ্টিগুণেও ভরপুর। এতে পেপিন নামে এমন এক ধরনের উপাদান রয়েছে যা শরীরের জন্য অনেক প্রয়োজনীয়। এছাড়া এতে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন, আয়রন, মিনারেল, ফসফরাস, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ফাইবার রয়েছে, যা শরীরের বাড়তি মেদ কমাতে ভূমিকা রাখে। তবে ওজন কমানো ছাড়াও পেঁপের আরও নানা স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে। এটি কার্ডিওভাসকুলার সিস্টেমের যে কোন সমস্যা, হজম সমস্যাসহ ক্যান্সার প্রতিরোধেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এত গুণ থাকা সত্ত্বেও পেঁপে যে সবার জন্যই ভালো এমনটি নয়। বরং কোন কোন সময় এটি খাওয়া বেশ ক্ষতিকর। বিশেষ কিছু রোগে পেঁপে খেলে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। তাই কিছু ক্ষেত্রে পুষ্টিকর এই ফলটি খেতে নিষেধ করেছেন চিকিৎসকরা।
এবার জেনে নিন যাদের পেঁপে খেতে মানা করেছেন চিকিৎসকরা-

 

গর্ভাবস্থায়
গর্ভাবস্থায় বেশি পরিমাণে পেঁপে খাওয়া এবারেই এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। তারা বলেছেন, পেঁপেতে এমন কিছু উপাদান বিদ্যমান রয়েছে, যা গর্ভপাতের সম্ভবনা বাড়িয়ে দেয়। তাই এ সময় পেঁপে না খাওয়াই ভালো।

 

শ্বাসকষ্ট হয় যাদের
অ্যালার্জির কারণে যাদের প্রায়ই শ্বাসকষ্ট হয়ে থাকে, তাদের ভুলেও পেঁপে খাবেন না। কারণ এতে বিদ্যমান পেপিন নামের উপাদানটি শরীরে প্রবেশ করা মাত্রই শ্বাসকষ্টের আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। তাই এটি এড়িয়ে চলাই ভালো। আবার অ্যাজমা কিংবা হাঁপানিতে যারা ভুগছেন, তাদেরও এই ফলটি খাওয়া চলবে না।

 

কিডনি স্টোনের আশঙ্কা বাড়ায়
যত পুষ্টিকরই হোক না কেন, কোন কিছুই বেশি পরিমাণে খাওয়া ভাল নয়। পেঁপের ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে। এই পরিমাণ ভিটামিন যদি প্রায় দিনই শরীরে প্রবেশ করতে শুরু করে, তাহলে দেহে ভিটামিন সি-এর পরিমাণ মাত্রাতিরিক্ত হারে বৃদ্ধি পায়। আর এমনটা হলে কিডনিতে স্টোন হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়।

 

শুক্রাণু কমিয়ে দেয়
আপনি কি বাবা হওয়ার পরিকল্পনা করছেন? তাহলে বেশি মাত্রায় পেঁপে খাওয়া বন্ধ করুন। কেন? আসলে এই ফলটিতে উপস্থিত বেশ কিছু এনজাইম রয়েছে যা শুক্রাণুর পরিমাণ কমিয়ে দেয়। ফলে ফার্টিলিটি কমে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

 

পেটের রোগের জন্য দায়ী
বেশি পরিমাণে পেঁপে খেলে এতে বিদ্যমান পেপিন পাকস্থলীর কর্মক্ষমতা কমিয়ে দেয়। ফলে নানা ধরনের পেটের রোগে হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। তবে অল্প পরিমাণে পেঁপেতে কোন সমস্যা হয় না।

 

ত্বকের সমস্যা বাড়ায়
করোটেনেমিয়া নামক ত্বকের রোগে যারা আক্রান্ত তাদের পেঁপে খাওয়া একেবারেই চলবে না। কারণ এতে উপস্থিত ভিটামিন-এ এই ধরনের স্কিনের সমস্যাকে আরও বাড়িয়ে দেয়।

 

শকর্রার মাত্রা কমিয়ে দেয়
রক্তে সুগার লেভেল বেড়ে যাওয়াটা যেমন ভাল নয়, তেমনি বেশি মাত্রায় কমে যাওয়াটাও ক্ষতিকর। তাই তো মাত্রাতিরিক্ত পরিমাণে পেঁপে খাওয়া একেবারেই উচিত নয়। কারণ এই ফলটি শর্করার মাত্রা নিমেষেই কমিয়ে দেয়। ফলে হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পরার সম্ভবনা বেড়ে যায়।

 

তথ্যসূত্র: বোল্ডস্কাই ডট কম।