উদ্ধারকাজ সমাপ্ত ঘোষণার পরও রাঙামাটিতে আরও ২ লাশ

প্রকাশিত :১৭.০৬.২০১৭, ২:৪৫ অপরাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : রাঙামাটিতে পাহাড়ধসের ঘটনায় উদ্ধারকাজ আনুষ্ঠানিক সমাপ্ত ঘোষণা করার পর আরও দুইজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ শনিবার সকালে জোড়াছুড়ির দুমদুম্যা ইউনিয়ন থেকে লাশ দুটি উদ্ধার করা হয়।
এ নিয়ে এই পার্বত্য জেলাটিতে পাহাড় ধসে মৃতের সংখ্যা ১১২ জনে দাঁড়াল। সব মিলিয়ে এই দুর্যোগে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫৮ জন।

নিহতরা হলেন- তিয়ং চাকমা (১৭) ও চিগেচোথা চামা (১৭)।
আজ শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাঙামাটি জেলার জোড়াছুড়ি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা রাশেদুল ইকবাল চৌধুরী। তিনি জানান, স্থানীয়দের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আবার রাঙামাটিতে উদ্ধারকাজ শুরু করেছে রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিস। শনিবার সকাল থেকে শহরের মুসলিমপাড়া ও লোকনাথ মন্দির এলাকায় উদ্ধারকাজ শুরু হয়।
রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক গোলাম মোস্তফা জানান, পাহাড়ধসে নিহতদের মরদেহ পানিতে ভাসছে-এমন তথ্যের ভিত্তিতে তারা উদ্ধারকাজ শুরু করেন। তবে এখনো পর্যন্ত কোথাও কোনো মরদেহের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে শহরের এ দুটি এলাকায় পাহাড়ধসে নিখোঁজ ব্যক্তিদের সন্ধানে তারা কাজ অব্যাহত রেখেছেন।
এদিকে পাহাড়ধসের বিপর্যয়ের ঘটনায় রাঙামাটি-চট্টগ্রাম সড়ক, রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়ক, রাঙামাটি-বড়ইছড়ি ও রাঙামাটি-কাপ্তাই সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা এখনো বিছিন্ন রয়েছে। সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোর এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মীরা রাস্তার যোগাযোগ পুনঃস্থাপনের জন্য কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।
রাঙামাটির ১২টি আশ্রয়কেন্দ্রে এ পর্যন্ত দুই হাজারের বেশি মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। সেনাবাহিনী আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে পানি ও খাবার সরবরাহ করছে। শহরে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা স্বাভাবিক রয়েছে। সড়ক যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে গেলেও রাঙামাটি কাপ্তাই পানি পথে সীমিত পণ্য পরিবহন শুরু করা হয়েছে।