cocha

সৌরভ-শচীনদের কোচ বাছাইয়ের যোগ্যতাই নেই!

প্রকাশিত :১৪.০৭.২০১৭, ৬:৫৯ অপরাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : অনেক নাটকের পর রবি শাস্ত্রীকে প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। আনুষ্ঠানিকভাবে বোর্ড এটি জানালেও সিদ্ধান্তটি নেওয়ার ভার ছিল তিনজনের কাঁধে। শচীন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলী ও ভিভিএস লক্ষণের উপদেষ্টা কমিটিই সিদ্ধান্ত নিয়েছে শাস্ত্রীর হাতে দলের ভার তুলে দেওয়ার। পরশু দুই মাস ধরে চলা নাটকের ইতি ঘটেছে বলেই মনে হয়েছিল। কিন্তু সেটা আর হলো কই?

প্রাথমিক খবরে জানা গিয়েছিল, শাস্ত্রী ছাড়াও ভারতীয় দলে যুক্ত হবেন রাহুল দ্রাবিড় ও জহির খান। দ্রাবিড় থাকবেন ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে আর সাবেক পেসার জহির বোলিং কোচ হিসেবে। কিন্তু কাল ভারতীয় বোর্ড নাটকে নতুন অঙ্ক যোগ করেছে। এক বিবৃতিতে বোর্ড তিন উপদেষ্টাকে ধন্যবাদ জানিয়েছে কোচ নির্বাচন করে দেওয়ার জন্য। সেই সঙ্গে শাস্ত্রীকে কেন কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, সে ব্যাখ্যাও দিয়েছে বোর্ড। আর জানিয়েছে, শাস্ত্রীর পরামর্শেই দুজন ব্যাটিং ও বোলিং পরামর্শক নিয়োগ দিয়েছে বোর্ড!
অর্থাৎ দুদিন আগেই জহির খানকে বোলিং কোচ হিসেবে পরিচিত করে দেওয়া হলেও সেটা কাল নেমে এসেছে পরামর্শকের দায়িত্বে। প্রথম থেকে জহিরের ব্যাপারে আপত্তি ছিল শাস্ত্রীর। এ পদে তাঁর পছন্দ ছিল ভরত অরুণ। ভারতীয় দলের পরিচালকের পদে শাস্ত্রীর মেয়াদকালে এই অরুণই ছিলেন দলের বোলিং কোচ। শাস্ত্রী নাকি বোর্ডকে চাপ দিয়ে আবারও অরুণকে সে পদ ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন!
সাবেক প্রধান নির্বাচক সন্দীপ পাতিল অবশ্য কোচ নির্বাচনের পুরো প্রক্রিয়া নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন। তাঁর ভাষায়, উপদেষ্টা কমিটির তিনজনের যোগ্যতাই নেই কোচ বাছাইয়ের মতো সিদ্ধান্ত নেওয়ার, ‘ব্যাপারটাকে প্যাঁচানো হয়েছে বলব না, বলব পুরো ব্যাপারটাই ভুল। শচীন, সৌরভ ও লক্ষণ খেলোয়াড় হিসেবে কিংবদন্তি এবং দেশের হয়ে দারুণ সব কাজ করেছেন। কিন্তু এঁরা তো কখনো কোনো দলকে কোচিং করায়নি। কখনো কি দেখেছেন কোচ আম্পায়ার কিংবা আম্পায়ার কোচ নির্বাচন করছে?’
পাতিলের সন্দেহ, এসব সিদ্ধান্ত আসলে বোর্ডই নিচ্ছে। শুধু নিজেদের নিরাপদে রাখার জন্য এই বাড়তি পদক্ষেপ নিচ্ছেন বোর্ড কর্মকর্তারা, ‘মনে হচ্ছে তারা দায়িত্ব এড়াতে চাচ্ছে, “দেখ আমরা নতুন কোচ বেছে নিয়েছি, এখন তোমরা দেখ।’’ এটা আসলে লোধা প্যানেলের কারণে নিজেদের নিরাপদ রাখার চেষ্টা।’ সূত্র: ডেকান ক্রনিকলস।