qatar

কাতারের সঙ্গে সুসম্পর্ক রাখবে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত :১৫.০৭.২০১৭, ১১:২৮ পূর্বাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : কাতারের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখার ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। একই সঙ্গে দেশটিতে যে মার্কিন সেনা ঘাঁটি রয়েছে তা অব্যাহত রাখবেন তিনি। গত ৫ জুন সন্ত্রাসবাদে মদদ, মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি ও অভ্যন্তরীণ হস্তক্ষেপের অভিযোগ এনে কাতারের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করে সৌদি আরবের নেতৃত্বে সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মিশর।
মে মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট মধ্যপ্রাচ্য সফর করে ফিরে যাওয়ার পরপরই কাতারের ওপর এই অবরোধ আরোপ করে গালফ অঞ্চলের দেশগুলো।
ট্রাম্পও সে সময়ে সৌদি আরবকে সমর্থন দেন। টুইট করে কাতারকে সন্ত্রাসে সহযোগিতার পথ থেকে সরে আসার আহ্বান। তবে এবার সে অবস্থান থেকে সরে আসার ইঙ্গিত দিলেন ট্রাম্প।
যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক টেলিভিশন সিবিএন নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমরা কাতারের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চাচ্ছি এবং সামরিক ঘাঁটি নিয়ে কোনো ঝামেলা চাচ্ছি না।’
তিনি বলেন, ‘কাতারের আল-উদেইদ মার্কিন ঘাঁটি সরানো হবে না। মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় এই ঘাঁটিতে ১০ হাজার মার্কিন সেনা রয়েছে। সামরিক ঘাঁটি নিয়ে আমাদের কোনো সমস্যা হবে না।’
ট্রাম্প বলেন, ‘আমি সৌদি আরবের সঙ্গে কথা বলেছি। আমি বলেছি, সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন আমরা বন্ধ করব। কাতার সন্ত্রাসবাদে অর্থের যোগানদাতা হিসেবে পরিচিত। আমরা কোনো সম্পদশালী দেশকে এটি করতে দেব না।’
বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সৌদি বাদশা সালমানের সঙ্গে ফোনে কাতার সংকট নিরসনের বিষয়ে আলাপ করেছেন।
মধ্যপ্রাচ্য সফরে ট্রাম্প বিশ্ব মুসলিম নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। তার দুদিনের এই সফর শেষে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সৌদি আরব ১১০ বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র কেনার চুক্তি করে। এরপর গত মাসে কাতার এফ-১৫ যুদ্ধবিমান কিনতে ১২ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি করে।