ahsulia-jug_

আশুলিয়ায় ‘জঙ্গি আস্তানায়’ গুলির শব্দ, আটক ১

প্রকাশিত :১৬.০৭.২০১৭, ১১:২৫ পূর্বাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : সাভারের আশুলিয়ার পাথালিয়া ইউনিয়নের চৌরাবালি এলাকায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। সেখানে থেমে থেমে গুলির শব্দ শোনা যাচ্ছে।
এদিকে এ ঘটনায় ওই বাড়ির মালিক ইব্রাহীমকে আটক করা হয়েছে। তিনি এ ঘটনায় জড়িত থাকতে পারেন বলে সন্দেহ করছেন র‌্যাব সদস্যরা।

সকাল সাড়ে ৭টার দিকে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া শাখার পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান জানান, গতকাল শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে র‌্যাব-৪ এর একটি দল নয়ারহাট এলাকার চৌরাবালি এলাকায় ইব্রাহীম নামে এক ব্যক্তির মালিকানাধীন ওই বাড়ি ঘিরে ফেলে। সকালে র‌্যাবের স্পেশাল ফোর্স ও বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দলের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর চূড়ান্ত অভিযানের প্রস্তুতি শুরু হয়।
তিনি বলেন, জঙ্গিদের অক্ষত অবস্থায় নিজেদের হেফাজতে আনার চেষ্টা চলছে। এরই মধ্যে তাদের নিরস্ত্র হয়ে আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হয়েছে। কিন্তু তারা এখনো গুরুত্ব দিচ্ছে না। ওই বাড়ির মালিক ইব্রাহিমকে জঙ্গিদের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।
মুফতি মাহমুদ জানান, প্রাথমিকভাবে তিনি (বাড়ির মালিক) জানিয়েছেন, পোশাকশ্রমিক পরিচয় দিয়ে আজাদ নামে এক ব্যক্তি মাস দু’য়েক আগে বাড়িটি ভাড়া নিয়েছিল। ধারণা করা হচ্ছে ভেতরে একাধিক জঙ্গি রয়েছে। তাদের হ্যান্ডমাইকে বারবার আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, আমরা একটু ওয়েট করছি তাদের রেসপন্স দেখার জন্য। আমরা সার্বিকভাবে চেষ্টা করব, যাতে তাদের সারেন্ডর করানো যায়।
অভিযানের নেতৃত্বে থাকা র‌্যাব-৪ অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি লুৎফুল কবীর বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে আমরা এই জঙ্গিদের ব্যাপারে অনুসন্ধান চালাচ্ছিলাম। এর ধারাবাহিকতায় তাদের এই আস্তানার বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে রাতে বাড়িটি ঘিরে ফেলা হয়।
তিনি বলেন, অভিযান শুরুর পরপরই ভেতরে থাকা ‘জঙ্গিরা’ র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে কমপক্ষে পাঁচ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। পরে রোববার সকাল ৬টার দিকে ওই বাড়ি থেকে র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে ফের ৫-৭ রাউন্ড গুলি ও একটি গ্রেনেড ছোড়া হয়। জবাবে র‌্যাবের সদস্যরাও পাল্টা বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়েন।
বাড়িটির ভেতরে ‘জঙ্গি দলের’ ৩-৪ জন সদস্য রয়েছে। মাইকে বাড়িটির ভেতরে থাকা ‘জঙ্গিদের’ আত্মসমর্পণ করার জন্য বার বার বলা হচ্ছে। কিন্তু তারা এই আহ্বানে সাড়া না দিয়ে উল্টো গুলি ও গ্রেনেড ছুড়েছে। এ ঘটনায় র‌্যাব সদস্যরাও গুলি ছুড়তে বাধ্য হয়েছে।
ওই জঙ্গি বাড়ির আধা কিলোমিটার এলাকায় জুরে গণমাধ্যম কর্মী ও সর্বসাধারণদের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সেখানে শুধু মাত্র অভিযানে অংশগ্রহণকারী র‌্যাব সদস্যরা উপস্থিত রয়েছেন।
আশুলিয়া থানা পুলিশের একটি দলও ঘটনাস্থলে রয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে আশপাশের বাড়িগুলো থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন আশুলিয়া থানার ওসি আব্দুল আওয়াল।