jabi

জাবি শিক্ষার্থীদের অবরোধ প্রত্যাহার

প্রকাশিত :০৪.০৮.২০১৭, ১২:০৩ অপরাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : তীব্র আন্দোলনের মুখে অবশেষে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) চলমান সংকটের সমাধান হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন ও আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তি ও জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক নামজুল হোসেন আজ শুক্রবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের শুক্রবার মধ্যরাত পর্যন্ত আলোচনা হয়। এতে ৫৬ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

আলোচনা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তপন কুমার সাহা বলেন, আলোচনার ভিত্তিতে দুই পক্ষের মধ্যে একটি যৌক্তিক ও সম্মানজনক সমাধান হয়েছে।
উভয়পক্ষের মধ্যে সফল আলোচনার প্রেক্ষিতে অবরোধসহ সকল আন্দোলন কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যায় সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান।
মামলা প্রত্যাহারসহ ৪ দফা দাবিতে টানা চার দিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন অবরুদ্ধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা।এতে অচল হয়ে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
বৃহস্পতিবার অবরোধের মধ্যেই শিক্ষকদের একটি অংশ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করলে পরিস্থিতি ভিন্নদিকে মোড় নেয়। এদিন সন্ধ্যায় উপাচার্য প্রফেসর ড. ফারজানা ইসলামের নেতৃত্বে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনায় বসেন শিক্ষকরা।
টানা প্রায় ১১ ঘণ্টার আলোচনার পরে ৫৬ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা সন্মানজনকভাবে দ্রুত প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার আবু বকর সিদ্দিক।
সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক নামজুল হোসেন জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভূত সমস্যা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত দীর্ঘ আলাপ আলোচনা করে। এতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সমস্যা সমাধানে যা কিছু করণীয় তাই করবে বলে আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক ভবন অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
প্রসঙ্গত, গত মে মাসে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী ঢাকা আরিচা মহাসড়কের সাভারের সিএনবি এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়। প্রতিবাদে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা। এক পর্যায়ে পুলিশ তাদের ওপর বেদম লাঠিপেটা করলে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের বাস ভবনে হামলা চালায়।
ভাঙচুর ও শিক্ষকদের ওপর হামলার অভিযোগ এনে কর্তৃপক্ষ ৫৬ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে তা প্রত্যাহারের দাবিতে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। আগামী ৭ আগস্ট ৫৬ শিক্ষার্থীর ওই মামলায় আদালতে হাজিরা দেওয়ার কথা রয়েছে।