হাত ঠিক রেখেই মুক্তামণির সফল অস্ত্রোপচার

প্রকাশিত :১২.০৮.২০১৭, ৩:৩৯ অপরাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : বিরল রোগে আক্রান্ত মুক্তামণির হাতের মাংসপিণ্ড সফলভাবে অপসারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের পরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, তবে এখনই তাকে ঝুঁকিমুক্ত বলা যাচ্ছে না। পর্যায়ক্রমে আরো ৫-৬টি অস্ত্রোপচার করা লাগবে।
আজ শনিবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের কনফারেন্স রুমে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান ইউনিটের পরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ।

তিনি বলেন, আজকের অপারেশন সফল হয়েছে। হাতটা রক্ষা করতে পেরেছি। হাত থেকে মাংসপিণ্ড সফলভাবে অপসারণ করা হয়েছে। তবে আমাদের আরো অনেক দূর যেতে হবে। মুক্তামণির আরো ৫-৬টি অপারেশন করতে হবে। তাকে তিন দিন আইসিইউতে রাখা হবে। শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে পর্যায়ক্রমে তার বাকি অস্ত্রোপচার করা হবে।
আজকের অপারেশনে ১৫ জন সার্জন ও ৭ জন এনেসথেশিয়ান অংশ নেন বলেও জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেনসহ অস্ত্রোপচারে অংশ নেওয়া কয়েকজন চিকিৎসক।
এর আগে সকাল সোয়া ৮টার দিকে তাকে অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হয়। ৮টা ৫০ মিনিটের দিকে চিকিৎসকরা অস্ত্রোপচার শুরু করেন। অস্ত্রোপচার শেষে বেলা সোয়া ১১টায় তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়।
এদিকে মুক্তামনির মা আসমা খাতুন জানান, অপারেশনের পর মুক্তামনিকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। তার জ্ঞান ফিরেছে।
মুক্তামনির বিরল রোগ নিয়ে সম্প্রতি গণমাধ্যমে ঢালাওভাবে সংবাদ প্রকাশ ও প্রচার হয়। আলোচনার ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। অবশেষে ১১ জুলাই ঢামেকের বার্ন ইউনিটে তাকে ভর্তি করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন।
সাতক্ষীরার কামারবাইশালের দরিদ্র মুদি দোকানদার ইব্রাহিম হোসেনের যমজ দু’মেয়ে হীরামনি ও মুক্তামণি। হীরামনি সম্পূর্ণ সুস্থ থাকলেও মুক্তামণি বিরল এক ধরনের চর্মরোগে আক্রান্ত। এ রোগে তার ডান হাত ফুলে কোলবালিশের মতো হয়ে গেছে। পুঁজ থাকায় ছড়াচ্ছে দুর্গন্ধ। জন্মের পর থেকেই নাকি এ টিউমারটি দেখা দিয়েছিল ওর হাতে। তবে ৬ বছর পর্যন্ত বড় হয়নি। এরপর থেকেই সমস্যা শুরু।