kamrul

১৫ লাখ মে. টন চাল ও ৫ লাখ মে. টন গম আমদানির সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত :১৬.০৮.২০১৭, ৭:০০ অপরাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : ১৫ লাখ মেট্রিক টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার চলতি অর্থবছরে। একই সঙ্গে আমদানি শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২ শতাংশ করা হয়েছে।

আজ বুধবার সচিবালয়ে সরকারের খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির এই সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভা শেষে কমিটির সভাপতি খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী বলেন, এ বারের বন্যা ও ধানের ব্লাস্ট রোগের কারণে বোরোর ফসলে লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা যায়নি। এবার বোরো উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ১ কোটি ৯১ লাখ মেট্রিক টন। এ ছাড়া চাল ও ধান সংগ্রহ করার যে লক্ষ্যমাত্রা ছিল, সেটাও পূরণ করা যায়নি। মোট ৮ লাখ মেট্রিক টন চাল ও ৭ লাখ মেট্রিক টন ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। কিন্তু প্রায় ১০ লাখ মেট্রিক টন সংগ্রহ করা সম্ভব হচ্ছে না। এখানে যেভাবে বন্যা আসছে, তাতে বিপদের আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ জন্য সার্বিক বিবেচনা করে ১৫ লাখ মেট্রিক টন চাল ও ৫ লাখ মেট্রিক টন গম আমদানির সিদ্ধান্ত হয়েছে।

তবে মন্ত্রী বলেন, আমদানির সিদ্ধান্ত মানে এই নয় যে দেশে খাদ্যসংকট আছে। কেবল আগাম সাবধানতা অবলম্বনের জন্য এই চাল আমদানির সিদ্ধান্ত হয়েছে। ইতিমধ্যে ভিয়েতনাম থেকে আড়াই লাখ মেট্রিক টন চাল আমদানির যে সিদ্ধান্ত হয়েছে, তার বেশির ভাগই চলে এসেছে। কম্বোডিয়া থেকে আড়াই লাখ মেট্রিক টন চাল আসবে। চলতি অর্থবছরে মোট ১৫ লাখ মেট্রিক টন চাল আসবে।

মন্ত্রী জানান, আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে হতদরিদ্র ৫০ লাখ পরিবারকে ১০ টাকা কেজি দরে পরিবারপ্রতি ৩০ কেজি চাল দেওয়ার কর্মসূচি শুরু হবে। মন্ত্রী দাবি করেন, চালের দাম ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে আছে।