রূপান্তরকামীদের

রূপান্তরকামীদের জন্য আলাদা শৌচালয় ! তরুণের উদ্ভাবনী উদ্যোগ

প্রকাশিত :২৭.০৮.২০১৭, ৫:১৩ অপরাহ্ণ

সারাবেলা ডেস্ক : সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগোচ্ছে সমাজ। কিন্তু রূপান্তরকামীদের ‘ট্যারা’ চোখে দেখার স্বভাব আজও বন্ধ হয়নি।

অথচ প্রকৃতির নিয়মেই ওদের শারীরিক গঠন পুরুষ ও মহিলাদের থেকে আলাদা।

কিন্তু নানা ছুৎমার্গের জন্য ‘ওরা’ সমাজের অঙ্গ হয়ে উঠতে পারে না।

দূরেই সরিয়ে রাখা হয় ওদের। ‘ওরা’ অর্থাৎ বৃহন্নলা এবং  রূপান্তরকামীরা ।

আর এবার ওদের প্রাপ্য মর্যাদা দিতে এক অভিনব উদ্যোগ নিলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের এক কলেজ পড়ুয়া যুবক শোভন মুখোপাধ্যায়।

সম্প্রতি রূপান্তরকামীর জন্য পাবলিক টয়লেটের ব্যবস্থা করেছেন ২১ বছরের শোভন?

না, নতুন করে কোনও শৌচালয় তৈরি করেননি।

বরং পশ্চিম বাংলার শহর ও শহরতলিতে ছড়িয়ে থাকা বিভিন্ন পাবলিক টয়লেটে মহিলা ও পুরুষদের পাশাপাশি রূপান্তরকামীদের ব্যবহারের জন্যও জায়গা বের করে দিয়েছেন।

আর তাঁদের শৌচালয়ের জন্য দিয়েছেন একটি সুন্দর নামও।

প্রতিটি টয়লেটের দরজায় যেমন মহিলা বা পুরুষ উল্লেখ করা থাকে, তেমনই রূপান্তরকামীগনের ব্যবহৃত টয়লেটের বাইরে ঝুলছে ‘ত্রিধারা’ নামের বোর্ড।

কেন এমন নামকরণ? শোভন জানাচ্ছেন, ত্রি অর্থাৎ তিন নম্বর এবং ধারা মানে শক্তি। তৃতীয় শক্তিকে বোঝাতেই এই নাম মাথায় আসে তাঁর।

মহিলা টয়লেটের পাশেই তাঁদের জন্য থাকছে দুটি করে টয়লেট।

শোভন বলছেন,

“আলাদা করে রূপান্তরকামীদের জন্য পাবলিক টয়লেট বানানো খরচসাপেক্ষ। আর এই পদ্ধতিতে সরকারি অর্থও বাঁচবে।

সেই অর্থই যদি রূপান্তরকামীদের সার্বিক উন্নতির জন্য ব্যয় করা হয়, তাহলে গোটা দেশেরই মঙ্গল।”

 

আ-সা/ আজাদ