শনিবার ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন

প্রকাশিত :২০.১২.২০১৭, ৪:৪৩ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট: আগামী ২৩ ডিসেম্বর শনিবার সারাদেশে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন (২য় রাউন্ড) পালিত হবে। এ কার্যক্রমের মাধ্যমে সারাদেশে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী সকল শিশুদের ১টি করে নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী সকল শিশুকে ১টি করে লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

বুধবার ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নগর ভবনে আয়োজন করা সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালায় জানানো হয়, ডিএনসিসির এলাকায় ২য় রাউন্ডে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সের ৬৮ হাজার ৭৬৯ এবং ১২ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সের ৪ লাখ ৬ হাজার ৭৭৭ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে।

কর্মশালায় ডা. মাহমুদা আলী জানান, ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল মানবদেহে তৈরি হয় না। এটা খাওয়ার মাধ্যমে শরীরের চাহিদা মেটায়।

তিনি জানান, ভিটামিন ‘এ’ এর অভাবে রাতকানা, রক্তশূন্যতা, শারীরিক স্বাভাবিক বৃদ্ধি ব্যাহত হয় ও ত্বক মলীন হয়ে যায়।

বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য নীতিমালা অনুযায়ী, বছরে ২ বার ভিটামিন এ’ এর অভাব পূরনে সম্পূরক খাদ্য হিসেবে ভিটামিন এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুলে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। তবে ২৫টির বেশি খেলে সে অসুস্থ হয়ে যাবে এমনটা জানান ডা. ইমদাদুল হক।

ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল ক্যাম্পেইন কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৫টি অঞ্চলের আওতাধীন ৩৬টি ওয়ার্ডে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন (২য় রাউন্ড) পরিচালনা করার জন্য ১ হাজার ৪৯৯টি কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে স্থায়ী কেন্দ্র ৪৯টি। ২ হাজার ৯৯৮ জন স্বাস্থ্যকর্মীর মাধ্যমে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

স্বাস্থ্যকর্মীরা সঠিকভাবে কাজ করছে কিনা তা দেখার জন্য প্রথম সারির সুপারভাইজার ১৮৩ জন। দ্বিতীয় সারির সুপারভাইজার থাকবেন ১০৩ জন।

ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর জন্য প্রচার কিভাবে চলছে এমন এক প্রশ্নের জবাবে ডিএনসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জাকির হাসান বলেন, প্রগ্রামের দিন সকাল থেকে মাইকিং করা হবে। এ ছাড়া মসজিদের ইমামকে চিঠি দেওয়া হয়েছে, তারা মসজিদে প্রচার করবেন।

আজসারাবেলা/কিশন/স্বাস্থ্য