হাথুরুর শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)

হাথুরুর শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

প্রকাশিত :১৯.০১.২০১৮, ৭:১৫ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট : ওয়ানডেতে নিজেদের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ত্রিদেশীয় সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে ১৬৩ রানে হারিয়ে দুই ম্যাচ বাকি রেখে ফাইনালে উঠেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

আগের ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৮ উইকেটে জয়। ত্রিদেশীয় সিরিজের নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেও হেসে-খেলে জয় পেল বাংলাদেশ। মিরপুরে আজ শ্রীলঙ্কাকে টাইগাররা হারিয়েছে ১৬৩ রানের ব্যবধানে।
আজ শুরু থেকেই দিনটা বাংলাদেশে জন্য ভালো ছিল। প্রথমে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৭ উইকেটে ৩২০ রান করে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। জবাবে মাত্র ১৫৭ রানেই গুটিয়ে যায় লঙ্কানরা। বাংলাদেশি বোলারদের দাপটে মাত্র ৩২ ওভার দুই বল খেলতে সক্ষম হয় শ্রীলঙ্কা।

বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট শিকার করেন সাকিব আল হাসান। এ ছাড়া মাশরাফি ও রুবেল দুটি করে এবং নাসির ও মুস্তাফিজ একটি করে উইকেট নেন।
বাংলাদেশের ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে বিজয় ও তামিম দিনের শুরুটা ভালোই করেন। ওপেনিং জুটিতে তারা তুলে নেন ৭১ রান। ১৫ ওভারে বিদায় নেন বিজয়। পেরেরার বলে ডিকওয়েলার হাতে ধরা পড়ার আগে তিনি সংগ্রহ করেন ৩৫ রান। দলীয় ৭১ রানের মাথায় বাংলাদেশ প্রথম উইকেট হারায়।
দলের দ্বিতীয় উইকেট পড়ে ৩০তম ওভারে। সাকিবের সঙ্গে ৯৯ রানের জুটি গড়ে বিদায় নেন তামিম। গত ম্যাচের মতো খাতায় লেখায় ৮৪ রান। ইনিংসের ৩০তম ওভারে ধনাঞ্জয়ার বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। তার আগে ১০২ বল খেলে সাতটি চার আর দুটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন তামিম। দলের তখন ১৭০ রান।
ইনিংসের ৩৮তম ওভারে বিদায় নেন সাকিব। গুনারত্নে নিজের বলে নিজেই ক্যাচ নিয়ে সাজঘরে ফেরান সাকিবকে। এর আগে ৬৩ বল খেলে সাতটি চারের সাহায্যে সাকিব করেন ৬৭ রান। দলীয় ২২৭ রানের মাথায় বাংলাদেশ তৃতীয় উইকেট হারায়। ইনিংসের ৪৬তম ওভারে বিদায় নেন ২৩ বলে ২৪ রান করা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দলীয় ২৭৭ রানের মাথায় চতুর্থ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।
এর পর ২৮৪ রানের মাথায় বিদায় নেন মুশফিক। ৪৭তম ওভারে ৫২ বলে চারটি চার আর একটি ছক্কায় ৬২ রান করে বিদায় নেন তিনি। পেরেরার বলে বোল্ড হন মুশফিক। ষষ্ঠ উইকেটে ব্যক্তিগত ছয় রান করে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক মাশরাফি। এরপরই দলের একমাত্র শূন্য রান করে ফিরে যান নাসির।
রানের পাহাড় সামনে নিয়ে খেলতে নেমে প্রথম থেকেই বাধার মুখে পড়ে শ্রীলঙ্কা। দলীয় দুই রানের মাথায় কুশল পেরেরাকে ফিরিয়ে দেন নাসির হোসেন। এরপর উইকেট শিকারে নামেন মাশরাফি। উপুল থারাঙ্গা ২৫ রানে সাজঘরে ফেরেন। দলীয় ৪৩ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট হারায় লঙ্কানরা। দলীয় ১৪তম ওভারে আবারো মাশরাফি আঘাত হানেন। ফিরিয়ে দেন কুশল মেন্ডিসকে। ব্যক্তিগত ১৯ রান করে রুবেল হোসেনের হাতে ধরা পড়েন তিনি।
দলীয় ৬২ রানের মাথায় তৃতীয় উইকেট হারায় লঙ্কানরা। পরে ৮৫ রানের মাথায় ডিকওয়েলাকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান মুস্তাফিজ। তার সংগ্রহ ১৬ রান। ২৮ রান করে চান্দিমাল রান আউট হন সাকিবের হাতে। কিছুক্ষণ বাদে সাকিবের বলেই সাইফুদ্দিনের হাতে ক্যাচ তুলে দেন গুনারত্নে। তার সংগ্রহ ১৬ রান। এর পর আবারো সাকিব জাদু। বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারের বলে মুশফিকের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ডি সিলভা। তিনি খাতায় কোনো রান তুলতে পারেননি। এরপর ধনঞ্জয় ১৪ ও লাকমাল এক রান করে আউট হলে শ্রীলঙ্কার ইনিংসের ইতি হয়।