অদ্ভুত ও কিম্ভুতকিমাকার সেলফি যত!

প্রকাশিত :০৯.০১.২০১৮, ৫:৪০ অপরাহ্ণ

জুলকারনাইন জ্যাকি: হাতে আছে স্মার্ট মোবাইল আর সেলফি তুলবেন না, এটা তো অবিশ্বাস্য ব্যাপার। সেলফি তুলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার মধ্যে খারাপের কিছু নেই। সাধারণ সেলফি আর ব্যতিক্রমী সেলফি দুটো পুরো আলাদা ব্যাপার। শখের তোলা সেই সেলফি কিন্তু অনেক সময় হাসির খোরাকে পরিণত হয়। চলুন হাস্যকর কিছু সেলফি দেখে আসি।

 

ছুটির সময় চলছে। চলুন বেড়িয়ে আসি কোথা থেকে। কিন্তু পকেটে তো পয়সা নেই। তাহলে উপায় কি? বন্ধুদের বলে দিয়েছি প্যারিস যাচ্ছি। ছবি তুলে পাঠাব একগাদা। টাকার কাছে হার মানতে পারে না শখ। এক কাজ করা যাক। টিভির আইফেল টাওয়ারের সাথে সেলফি তুলে বন্ধুদের পাঠালে কেমন হয়?

সেলফি স্টিক নেই তাতে কি? হাতের কাছে আছে দেশিও প্রযুক্তির সমাধান। ময়লার তোলার স্টিক কবে কাজে আসবে!

বন্ধুরা হিংস্বা করো না। সবাই তো আমার মত সৌভাগ্যবান না। সুন্দরী মেয়েরা সবার গালে চুমু খায় না।

কেভিন রিচার্ডসন আবার একটু ব্যতিক্রম। তিনি হিংস্র প্রাণি বিশেষ করে সিংহ, বাঘ, হায়েনার সাথে সেলফি তুলতে ভালবাসেন।

সেলফিটি ফটোশপের কাজ কিনা সেটা বোঝা মুশকিল। তবে সেলফির মালিক ও আগন্তুক বন্ধুকে ভালই লাগছে। দুজনেই দাঁত কেলিয়ে হাসছেনও বটে। মানানসই হাসি।

এই সেলফি নিঃসন্দেহে প্রমাণ করে যে প্রাণিটি ছাড়া আপনার সেলফিটি অনর্থক হত।

মৃত্যুভয়কে উপেক্ষা করে সেলফিতে ব্যস্ত জনৈক ভদ্রলোক। ট্রেন পরিচালকের লাথি খেয়ে হলেও সেলফি তুলতে হবে। বেকুব কোথাকার।

সূত্র: ইন্টারনেট

আজ সারাবেলা/জ্যাকি/সেলফি