সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের জঙ্গিবাদবিরোধী অনুষ্ঠানে আলোচকবৃন্দ। ছবি: আজ সারাবেলা

জঙ্গিবাদ রুখতে সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের সেমিনার

প্রকাশিত :১১.০১.২০১৮, ৬:২৮ অপরাহ্ণ

সামিউল তারেক : ‘জাগো তারুণ্য রুখো জঙ্গিবাদ’ শিরোনামে সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের জঙ্গিবাদবিরোধী বছরব্যাপী কার্যক্রমের চতুর্থ সেমিনারটির আয়োজন করা হয়েছিল রাজধানীর মিরপুরের নর্থ ওয়েস্টার্ন কলেজ অডিটোরিয়ামে।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে সুচিন্তা ফাউন্ডেশন এর ডিরেক্টর কানতারা খান বলেন, সুচিন্তা তরুণদের এগিয়ে নিয়ে যেতে চায়। দেশব্যাপি তাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে আরও এগিয়ে নিতে কাজ করছে সুচিন্তা ফাউন্ডেশন। যাদের জয় বাংলা বলতে দ্বিধা বা জড়তা কাজ করে তাদের হৃদয়ে বাংলাদেশ নেই। জয় বাংলা কোন দলের স্লোগান নয়। মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান। বাংলাদেশের স্লোগান। বাংলাদেশের পরিচয়।

মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস তুলে ধরে তিনি আরও বলেন, যখন বাংলাদেশকে মানুষ ইতিবাচকভাবে চিনতে শুরু করেছে, উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে চিহিৃত করছে তখনই কিছু মানুষ এ দেশকে পিছিয়ে দেওয়ার জন্য ষড়যন্ত্র করছে। জঙ্গি হামলা চালাচ্ছে। আর এই জঙ্গিদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে দেশবিরোধীরাই। আজ তোমরা, এই তরুণরাই চিহিৃত করবে তাদের। প্রতিহত করবে। প্রতিরোধ করবে জঙ্গিবাদ।

রাজধানীর মিরপুরের নর্থ ওয়েস্টার্ন কলেজে অনুষ্ঠানে আলোচকবৃন্দ। ছবি: আজ সারাবেলা

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে হাজার বছরের বাঙালি সম্প্রীতি বজায় রাখার আহবান জানিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে বক্তব্য রাখেন দৈনিক ভোরের কাগজ সম্পাদক, শ্যামল দত্ত।
শ্যামল দত্ত বলেন, প্রীতি লতার, সূর্যসেনের, জাহানারা ইমামের, নূর হোসেনের দেশ বাংলাদেশ। এই দেশের মাটিতেই হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধুর জন্ম। এই মাটি শহীদের রক্তস্নাত। যে দেশের তরুণেরা দেশের জন্য জীবন দিয়েছে, সে দেশের তরুণেরা জঙ্গি হবে এটা কখনও হতে পারে না। তাদের বিপদগামী করছে, ভুল পথে পরিচালিত করছে অন্য কেউ, অন্য কোন স্বার্থে।

শিক্ষার্থীদের মধ্যে শ্রেণী পাঠ্যের বাইরে বই পড়ে কি না, পড়লে কি ধরনের বই পড়তে তারা আগ্রহী এই সব বিষয়ে জানতে চান তিনি। বাংলাদেশকে জানতে বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ পড়বার প্রয়োজনীয়তার কথাও তুলে ধরেন তিনি। তিনি আরও বলেন, তোমরাই প্রতিহত করবে জঙ্গিবাদ। তোমাদের মধ্যে অসীম সম্ভাবনা রয়েছে। তোমাদের বয়সেই এদেশের তরুণেরা যে কোন প্রগতিশীল আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েছে। তোমাদের মধ্য দিয়েই আগামী দিনের জয় আসবে।

অনুষ্ঠানে সমাপনী বক্তব্যে অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইব্রাহিম বলেন, প্রতি সপ্তাহে একদিন শ্রেণী পাঠের বাইরে ইতিহাস, ঐতিহ্য, মুক্তিযুদ্ধ এ সব বিষয়ে আমরা সেমিনার বা ওয়ার্কশপের আয়োজন করি। দেশকে নানাভাবে জানাতে চাই, তুলে ধরি তরুণদের মাঝে। এখান থেকে বের হওয়া প্রতিটি তরুণ হোক দেশপ্রেমের একনিষ্ঠ সৈনিক সেই প্রত্যাশাই আমাদের।

অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন ‘আজ সারাবেলা’র সম্পাদক, জব্বার হোসেন।