স্ত্রীকে হত্যা করে সন্তান নিয়ে লাপাত্তা স্বামী - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)
ইনসেটে ঘাতক স্বামী আল আমিন ও সন্তান হাতে নিহত গৃহবধু নিপা আক্তার

স্ত্রীকে হত্যা করে সন্তান নিয়ে লাপাত্তা স্বামী

প্রকাশিত :২২.০২.২০১৮, ৪:৩৩ অপরাহ্ণ

শামীম আহমেদ, বরিশাল: বরিশালের পটুয়াখালীর দুমকীতে স্ত্রীকে নির্যাতনের পর মুখে বিষ দিয়ে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে পাষণ্ড এক স্বামীর বিরুদ্ধে।

ঘাতক স্বামী আল আমিন খান (২৩) পটুয়াখালীর দুমকী থানার মুরাদীয়া ইউনিয়নের জাফর খানের পুত্র। নিহত গৃহবধু বাকেরগঞ্জ থানার ৭নং কবাই ইউনিয়নের পেয়ারপুরের অব্দুল মোতালেব শিকদারের কন্যা নিপা আক্তার (১৯)।

গত ২০ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার এ হত্যার ঘটনা ঘটে। স্ত্রীকে হত্যার পর লাশ ঘরের মধ্যে ফেলে রেখে ১ বছর বয়সি পুত্র সন্তান ওসমানকে নিয়ে লাপাত্তা হয়ে গেছে অভিযুক্ত স্বামী আল আমিন। প্রতিবেশিরা ঘটনা বুঝতে পেরে ঘরের মধ্যে ঢুকে গৃহবধু নিপাকে মৃত্যু অবস্থায় দেখতে পায়। এসময় তারা বিষয়টি গৃহবধুর স্বজনদের মোবাইল ফোনে জানালে তারা এসে পটুয়াখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক জানান, নিপাকে হাসপাতালে নিয়ে আসার অনেক আগেই তার মৃতু হয়।

সূত্রে জানা গেছে, গত ২ বছর আগে পটুয়াখালীর দুমকী থানার মুরাদীয়া ইউনিয়নের জাফর খানের পুত্র আল আমিনের সাথে বাকেরগঞ্জ থানার ৭নং কবাই ইউনিয়নের পেয়ারপুরের অব্দুল মোতালেব শিকদারের কন্যা নিপা আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় বর আল আমিনকে নগদ ২ লাখ টাকা যৌতুক হিসাবে প্রদান করা হয়। কিন্তু বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতেই ফের আল আমিন যৌতুকের দাবী করে। কিন্তু সে আর পিতার কাছ থেকে যৌতুক এনে দিতে পারবে না বলে স্বামীকে সাফ জানিয়ে দিলে যৌতুকলোভী স্বামী আল আমিন প্রাইয় স্ত্রীকে নির্যাতন করতো। এক পর্যায়ে স্বামী আল আমিন স্ত্রী নিপাকে বেধরক মারধর করে মুখে বিষ ঢেলে হত্যা করে আত্মহত্যার চেস্টা করেছে বলে অপপ্রচার চালায়। স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে পাষণ্ড স্বামী আল আমিন তাদের ১ বছর বয়সি পূত্র ওসমানকে নিয়ে লাপাত্তা হয়ে গেছে। ঘর তালাবদ্ধ করে স্বপরিবারে গা ঢাকা দিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পটুয়াখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক চিকিৎসক জানান, নিপাকে অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে। তাকে হাসপাতালে আনার পর থেকেই তার- গোটা শরীর ফুলে ফেপে উঠেছিল। তারই সাথে সাথে নাক, মুক,কান ও যৌনাঙ্গ দিয়ে রক্ত ঝরছিল। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

পুলিশকে খবর দিলে দুমকী থানার এসআই মোঃ মানিক হাসপাতালে গিয়ে নিপার মরদেহ দেখে আসেন। লাশের ময়নাতদন্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আজ সারাবেলা/সংবাদ/সারাদেশ