সংস্কার ও বহালের দাবিতে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি পালন - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)
কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা

সরকারি চাকরিতে ‌‘কোটা’
সংস্কার ও বহালের দাবিতে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি পালন

প্রকাশিত :২৫.০২.২০১৮, ৭:১৫ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট: সরকারি চাকরিতে বিদ্যমান কোটা সংস্কারের ৫ দফা দাবিতে রাজধানীর শাহবাগে সাধারণ শিক্ষার্থী ও চাকরি প্রার্থীরা অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। তারা বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন।

আজ রোববার বেলা ১১টা থেকে শুরু হওয়া এই বিক্ষোভ সমাবেশ চলে দুপুর ১২টা পর্যন্ত।

এক ঘণ্টার ওই কর্মসূচিতে শত শত শিক্ষার্থী স্লোগান ও হাততালি দিয়ে বিক্ষোভে অংশ নেন। তারা বিভিন্ন প্লাকার্ডে ও স্লোগানে স্লোগানে তাদের দাবিগুলো তুলে ধরেছেন। প্লাকার্ডগুলোয় লেখা হয়েছে, ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলায় কোটা বৈষম্যের ঠাঁই নাই’, ‘১০%-এর বেশি কোটা নয়’, ‘নিয়োগে অভিন্ন কার্ড মার্ক নিশ্চিত কর’। তারা স্লোগান দিচ্ছেন, ‘কোটা পদ্ধতির সংস্কার চাই, সংস্কার চাই’।

কর্মসূচিতে বিক্ষোভকারীরা পাঁচ দফা দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হলো: কোটা ব্যবস্থা সংস্কার করে ৫৬ শতাংশ থেকে ১০ শতাংশে নিয়ে আসা, কোটায় যোগ্য প্রার্থী পাওয়া না গেলে মেধা থেকে শূন্য পদে নিয়োগ দেওয়া, কোটায় কোনো ধরনের বিশেষ পরীক্ষা না নেওয়া, সরকারি চাকরিতে সবার জন্য অভিন্ন বয়সসীমা এবং চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় কোটা সুবিধা একাধিকবার ব্যবহার না করা।

বিক্ষোভকারীরা জানান, তাদের চারজনের একটি দল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে গিয়ে কোটা সংস্কারের জন্য একটি আবেদনপত্র দেবেন। আগামী ৩ মার্চের মধ্যে যদি তাদের ওই দাবি পূরণ না হয়, তাহলে ৪ মার্চ আবার কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন করবেন তারা।

সরকার কর্তৃক প্রদও মুক্তিযোদ্ধা ৩০% সংরক্ষিত কোটার বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে এবং সর্বক্ষেত্রে নির্ধারিত মুক্তিযোদ্বা কোটা বাস্তবায়নের দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানবন্ধন করে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটি।

এদিকে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান ও নাতি-নাতনিদের জন্য সংরক্ষিত ৩০ শতাংশ কোটার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটি। রোববার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় গ্রন্থাগারের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সংগঠনটির সভাপতি মেহেদী হাসান এই অভিযোগ তোলেন।

তিনি বলেন, কোটার বিরুদ্ধে সাধারণ ছাত্রছাত্রীর ব্যানারে একটি অসাধু চক্র অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। সামজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা যায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবার নিয়ে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করা হচ্ছে।

“‘কোটা বাতিল না করলে নৌকায় ভোট দেব না, ‘যার যা আছে তা নিয়ে কোটার বিরুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ুন’ সব বিভিন্ন উসকানিমূলক মন্তব্য ও কোটার বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের ব্যবহার করছে।”

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. সেলিম রেজাসহ সংগঠনের নেতাকর্মীরা এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সংগঠনটির পক্ষ থেকে সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে একই দাবিতে মানববন্ধন করা হয়। পরে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে তারা শাহবাগ অভিমুখে রওনা দেন।

আজ সারাবেলা/সংবাদ/জাতীয়