ছাত্রলীগের সম্মেলন প্রত্যাশীদের পেটালো সম্মেলন বিরোধীরা - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)

ছাত্রলীগের সম্মেলন প্রত্যাশীদের পেটালো সম্মেলন বিরোধীরা

প্রকাশিত :১০.০৩.২০১৮, ১:২০ অপরাহ্ণ

সোহান সিরাজ : ছাত্রলীগের সম্মেলন প্রত্যাশীদের পিটিয়েছে সম্মেলন বিরোধী কিছু নেতাকর্মী। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে দুই জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মল চত্ত্বরে শুক্রবার দুপুরের পর ওই ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহতরা হলেন মাস্টার দ্যা সূর্যসেন হলের মেশকাত হাসান ও স্যার এ এফ রহমান হলের সাগর রহমান। এছাড়া সলিমুল্লাহ মুসলিম (এস এম) হলের কামাল হোসেনও আহত হয়েছেন। এরা সবাই দর্শন বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মেশকাত, সাগর ও কামাল মধুর ক্যান্টিনে বসে ছিলেন। এ সময় সূর্যসেন হল ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম সরোয়ারের অনুসারীরা লাঠি, রড, ও ইটপাটকেল নিয়ে অকস্মাৎ মেশকাত ও সাগরের ওপর হামলা চালায়।

এ বিষয়ে এস এম হল শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি কামাল জানান, মারধরের সময় হামলাকারীরা বলে, ‘তোরা সম্মেলন চাস? সরোয়ার ভাইয়ের বিরুদ্ধে কথা বলিস? আবিদ আল হাসানের বিরুদ্ধে কথা বলিস?’।

এসব বলে, সূর্যসেন হল শাখা ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মো. ইমরান হোসেন সাগর (স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট), উপ-কর্মসূচি বিষয়ক সম্পাদক মো. রাসেল রানা সোহেল (টেলিভিশন, ফিল্ম অ্যান্ড ফটোগ্রাফি বিভাগ), উপ-ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মো. আসাদ পাঠান (মনোবিজ্ঞান), ব্যাংকিং বিভাগের সারোয়ার হোসেন, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের মশিউর রহমানসহ হল শাখা ছাত্রলীগের ২০-২৫ জন নেতাকর্মী তাদের ওপর হামলায় চালায় বলে অভিযোগ করেন কামাল।

হামলার শিকার ওই দুইজনকে মারতে মারতে মল চত্বরে নিয়ে আসা হয়। সেখানে থাকা ইট দিয়ে মেশকাত ও সাগরের মাথায় আঘাত করা হয় বলে জানান কামাল।

তারা মাটিতে পড়ে গেলেও সরোয়ারের কয়েকজন কর্মী তাদের লাথি দেয় এবং ইট দিয়ে মারে। পরে তাদের দুইজনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, সিটি স্ক্যান করানোর পর মেশকাত ও সাগরকে ১০৩ নম্বর ওয়ার্ডে বিশ্রামে রাখা হয়েছে।

হামলার ঘটনায় সূর্যসেন হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম সরোয়ার বলেন, আহতদের খোঁজ খবর নিয়েছেন তিনি। যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।

উল্লেখ্য, আগামী মার্চের মধ্যে ছাত্রলীগের সম্মেলন করার জন্য আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। কিন্তু আগামী সংসদ নির্বাচন দেখিয়ে সম্মেলন করতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মী।

এদিকে, সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন পদপ্রত্যাশীরা। নেতাকর্মীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে উৎসাহ উদ্দীপনা। এর মধ্যে গত ৭ মার্চ জানা যায় ওই সম্মেলন আগামী ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু পরের দিন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন সাংবাদিকদের জানান, সম্মেলন ওই তারিখে হবে না। এতে নেতাকর্মীদের মধ্যে ধোয়াশা তৈরি হয়।

এ ঘটনার মধ্যেই ছাত্রলীগের সম্মেলন প্রত্যাশীদের মারধর করলো সম্মেলন বিরোধী নেতাকর্মীরা। এতে দুই পক্ষের বিরোধ স্পষ্ট হল।

আজসারাবেলা/সংবাদ/রবি/রাজধানী/শিক্ষাঙ্গন