সীমাহীন দুর্নীতিতে দেশ ছেয়ে গেছে: এরশাদ - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)

সীমাহীন দুর্নীতিতে দেশ ছেয়ে গেছে: এরশাদ

প্রকাশিত :১৯.০৩.২০১৮, ৮:০১ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট: সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, দেশের মানুষ দুই নেত্রীর শাসন পছন্দ করছে না। এ অবস্থায় জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে ৫৮ দলীয় সম্মিলিত মহাজোট গঠন করা হয়েছে। এই জোট দেশের মানুষের মধ্যে সুখ-শান্তি ফিরিয়ে দেবে।

সোমবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বাংলাদেশ জাতীয় জোট- (বিএনএ) আয়োজিত আগামী ২৪ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মহাসমাবেশ সফল করার লক্ষে আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, সীমাহীন দুর্নীতিতে দেশ ছেয়ে গেছে। প্রতিদিন হত্যা, ধর্ষণ, গুম, রাহাজানি চলছে। অর্থসংকটে কয়েকটি ব্যাংক বন্ধ হওয়ার পথে। মানুষের মধ্যে হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। সাধারণ মানুষ এ নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির বেড়াজাল থেকে মুক্তি পেতে চায়।

তিনি বলেন, দেশে যানজট, নিয়োগ বাণিজ্য, ব্যাংকের টাকা লোপাট, শেয়ারবাজারের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ, পুলিশের চাকরিতে মোটা অঙ্কের ঘুষ লেনদেন, শিক্ষাব্যবস্থায় অব্যবস্থা চলছে। ব্যাংকের টাকা আত্মসাতের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যাংক কোনো কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

তিনি আরও বলেন, শেয়ারবাজার থেকে শত শত কোটি টাকা লোপাট হওয়ায় ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীসহ শত শত পরিবার পথে বসেছে। এদের অর্থ উদ্ধারে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগে ১০ লাখ টাকা, এসআই নিয়োগে ২০ লাখ টাকা ঘুষ নেয়া হয়। শিশুদের ঘাড়ে গাদা গাদা বই চাপিয়ে তাদের কাঁধ ভেঙে ফেলার উপক্রম করেছে। শিক্ষার মান নেই, প্রশ্নপত্র ফাঁস হচ্ছে।

বেকারত্বের প্রসঙ্গ টেনে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, রাজধানীতে ১২৭টির মতো বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে হাজার হাজার শিক্ষার্থী প্রতি বছর উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করেও তারা বেকারত্বে ভুগছেন। হতাশায় বিভ্রান্তিতে পড়ে ইয়াবা সেবনে অভ্যস্ত হচ্ছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে দেশে অসংখ্য শিক্ষিত বেকার যুবক রয়েছেন যারা বাবা-মার অর্থকড়ি খরচ করে বেকার জীবনযাপন করছে। ১৮ কোটি জনগণের মধ্যে বর্তমানে ৫ কোটি মানুষ কর্ম করছে।

গার্মেন্টস শিল্প তিনিই প্রবর্তন করেছেন উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, আমি ৬০টি উপজেলা গঠন করেছি। আমার আমলের ১০ হাজার কিমি সড়ক মেরামত করেছি। বর্তমান সরকার উন্নয়নের কথা বলছে। কিন্তু আমার আমলে নির্মিত সড়কগুলোর একটিও সংস্কার হয়নি। ৫৭০টি কালভার্ট ও ব্রিজ নির্মাণ করেছি।

বিএনপি এবং আওয়ামী লীগের শাসন মানুষ চায় না মন্তব্য করে এরশাদ বলেন, আমার শাসন আমলের পর ২৭ বছর অতিবাহিত হয়েছে, এই ২৭ বছরে দেশের সাধারণ মানুষ সীমাহীন নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে। যে কারণে দেশের মানুষ এই দুই নেত্রীর শাসন এখন আর চায় না। তারা পরিবর্তন চায়।

তিনি বলেন, মানুষ চেয়ে আছে এখন আমাদের দিকে। জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। আমার বিশ্বাস আগামী জাতীয় নির্বাচনে আমরাই সরকার গঠন করব ইনশাআল্লাহ। এ জন্য তিনি আগামী ২৪ মার্চ ২০১৮ মহাসমাবেশে যোগদানের জন্য দেশের সর্বস্তরের মানুষকে উদাত্ত আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ জাতীয় জোট বিএনএর চেয়ারম্যান সেকেন্দার আলী মনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, বিএনএর মহাসচিব অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসেন, মুখপাত্র শেখ মোস্তাফিজুর রহমান, সমন্বয়কারী আখতার হোসেন, আফাজুল হক, মো. আশরাফ হোসেন, মো. কামরুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য দেন।