ফেসবুক হ্যাকিং থেকে বাঁচার উপায় - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)

ফেসবুক হ্যাকিং থেকে বাঁচার উপায়

প্রকাশিত :২১.০৩.২০১৮, ৬:৫৮ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট: ‘আপনি দেখতে কোন বলিউড অভিনেতার মতো’, ‘কোন বন্ধু আপনাকে গোপনে ভালোবাসে’ কিংবা ‘আগের জন্মে আপনি কেমন ছিলেন’ এমন সব মজার প্রশ্নের উত্তর জানার আগ্রহে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের অনেকেই বিভিন্ন সাইট ও অ্যাপে ক্লিক করে থাকেন। উত্তর দেয়ার জন্য সেসব সাইট প্রথমেই চায় আগ্রহীর ফেসবুক প্রোফাইলে প্রবেশের অনুমতি। আগ্রহের কারণে কোনো কিছু না ভেবেই অনেকে তা দিয়েও দেন। কিন্তু এরই মাধ্যমে যে সেসব সাইট ব্যবহারকারীর পুরো প্রোফাইলের তথ্য হাতিয়ে নেন তা জানা থাকে না কারও।

অ্যাপগুলো ফেসবুক ব্যবহারকারীর নাম, প্রোফাইল ছবি, ই-মেইল ঠিকানা ইত্যাদি নিয়ে নেয়। তবে কিছু কিছু অ্যাপ ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত বার্তার তথ্যও নিয়ে নেয়। আর সেগুলো নিজের অজান্তেই দিয়ে থাকেন ব্যবহারকারী।

ডাটা প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা পাঁচ কোটি ফেসবুক গ্রাহকের তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে, সম্প্রতি এমন অভিযোগ ওঠার পর বিষয়টি নতুন করে আলোচনার জন্ম দিয়েছে। হোয়াইটঅ্যাপের সহপ্রতিষ্ঠাতা ব্রায়ান অ্যাকটন মঙ্গলবার এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, ‘নিজেদের গোপনীয়তা বজায় রাখতে হলে ফেসবুক থেকে প্রোফাইল মুছে ফেলার এখনই সময়।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্পর্কে জনগণের ধারণা জানতে একদল গবেষক ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য জমা করেছিল। সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান এবং নিউইয়র্ক টাইমস সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে বিষয়টি ফাঁস করে দেয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গবেষকেরা ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিত্ব পরীক্ষার নামে একটি ফেসবুক অ্যাপ প্রকাশ করে। আর এরই মাধ্যমে ফেসবুক থেকে ব্যবহারকারীদের তথ্য সংগ্রহ করে তারা। তথ্যপ্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা তাই পরামর্শ দিচ্ছেন, এমন অ্যাপ যারা ব্যবহার করেছেন ফেসবুকের অ্যাকাউন্ট থেকে সেগুলো দ্রুত মুছে ফেলুন।

বিষয়টি যে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের উদ্বেগের মাত্রা বাড়িয়েছে তা স্পষ্ট। মাত্র এক দিনেই ফেসবুক শেয়ারবাজারে বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ২ লাখ ৯৫ হাজার ২০০ কোটি অর্থ হারিয়েছে। মাত্র একদিনের মধ্যেই ওয়ালস্ট্রিটে ফেসবুকের অবস্থান নড়বড়ে হয়ে যাওয়ায় প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা বলছেন, তথ্য ফাঁসের বিষয়টি জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটিকে অস্তিত্বের সংকটে ফেলবে। কেননা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা নামের ওই প্রতিষ্ঠানটিকে তথ্য সংগ্রহের জন্য ফেসবুক স্বয়ং অনুমতি দিয়েছিল।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে ফেসবুকের আইডি চালু রেখে কিভাবে হ্যাকারদের কবল থেকে মুক্ত থাকা যায়। এই বিষয়ে প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দুটো উপায়ে কাজটি করা যায়। ফেসবুকের ডেস্কটপ সংস্করণ থেকে কিংবা ফেসবুকের অ্যাপের মাধ্যমে।

ডেস্কটপ সংস্করণে ব্যবহারকারীর নামের পাশ থেকে সেটিংসে যেতে হবে। সেটিংসের নিচের অংশে ‘অ্যাপ’-এ ঢুকলেই পাওয়া যাবে কোন কোন অ্যাপের ব্যবহারকারীর ফেসবুক থেকে তথ্য নেওয়ার অনুমতি রয়েছে। অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো অ্যাপ মুছে ফেলতে চাইলে তার ওপর মাউসের পয়েন্টার রাখলেই অ্যাপটির পাশে ক্রস চিহ্ন আসবে। সেখানে ক্লিক করলেই মুছে ফেলার অনুমতি চাইবে ফেসবুক। নিশ্চিত করলেই ফেসবুক মুছে ফেলবে সেই অ্যাপ।

আর ফেসবুকের মোবাইল অ্যাপের ক্ষেত্রে নোটিফিকেশনের পাশের ‘অপশন’ আইকনে ক্লিক করতে হবে। এরপর নিচের দিকে সেটিংস থেকে অ্যাকাউন্ট সেটিংয়ে যেতে হবে। সেখানে অ্যাপের ভেতর ‘লগড ইন উইথ ফেসবুক’-এ প্রবেশ করলে সব অ্যাপের তালিকা পাওয়া যাবে। মুছে ফেলতে চান এমন অ্যাপে ক্লিক করলে এর নিচের দিকে ‘রিমুভ’ সুবিধাটি দেখা যাবে। সেখানে ক্লিক করলে সেসব অ্যাপ থেকে মুক্তি মিলবে।

আজসারাবেলা/বিজ্ঞান-প্রযুক্তি