পৃথিবী টিকবে মাত্র ১১৭ বছর, শঙ্কায় বিজ্ঞানীরা - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)

পৃথিবী টিকবে মাত্র ১১৭ বছর, শঙ্কায় বিজ্ঞানীরা

প্রকাশিত :২১.০৩.২০১৮, ৭:৪০ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট: পৃথিবীর ভবিষ্যত যে ভালো নয়, মৃত্যুর আগে একাধিকবার তা বলে গেছেন বিখ্যাত পদার্থবিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং। পৃথিবীতে মানব জাতির হুমকির জন্যে তিনি অবশ্য একাধিক কারণ তুলে ধরেছিলেন। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল গ্রহাণুর আঘাত। বলেছিলেন, মহাকাশ থেকে ধেয়ে আসা এসব গ্রহাণু’র যে কোনোটি পৃথিবীর বিপর্যয়ের কারণ হতে পারে। যেমনটা হয়েছিল ডায়নোসর যুগের অবসানের সময়ে।

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা’র মতো পশ্চিমের বিজ্ঞানীরাও অনেকদিন ধরেই এই শঙ্কায় রয়েছেন। গ্রহাণুর আঘাত ঠেকাতে চলছে নানা গবেষণা। বিশাল গ্রহাণুকে ঠেকাতে বিজ্ঞানীরা মহাকাশে পরমাণু বোমা নিক্ষেপের মতো চিন্তাও করছেন। এতেই বোঝা সম্ভব, বহি:আক্রমণকে বিজ্ঞানীরা কতোটা হুমকি হিসেবে দেখছেন।

সম্প্রতি এই বিষয়েই বিজ্ঞানীদের ললাটে আরও কিছু চিন্তার রেখা দেখা দিয়েছে। নাসা জানিয়েছে, দূর মহাকাশ থেকে পৃথিবী লক্ষ্য করে আরও একটি বিশাল গ্রহাণু এগিয়ে আসছে। নাসার হিসেবে, যে গতিতে সেটি এগিয়ে আসছে তাতে আগামী ২১৩৫ সাল নাগাদ তা আঘাত হানতে পারে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট জানায়, গ্রহাণুটির নাম রাখা হয়েছে বেনু(Bennu)। হিসেব কষে দিন-ক্ষণও বের করেছেন নাসার বিজ্ঞানীরা। জানিয়েছেন, সেই বছরের ২২ সেপ্টেম্বর আঘাত করতে পারে গ্রহাণুটি। দিনটি বৃহস্পতিবার হবে বলেও জানিয়েছেন তারা।

বিজ্ঞানীরা আরও বলছেন, গ্রহাণুটি যদি পৃথিবীকে সত্যি সত্যি ধাক্কা দেয় তবে বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে যাবে। ফলে নাসা ইতিমধ্যে বেনু’র কবল থেকে বাঁচতে গবেষণা শুরু করে দিয়েছেন।

তবে বিজ্ঞানীদের পক্ষ থেকে এটাও বলা হচ্ছে, গ্রহাণুটি যে পৃথিবীকে আঘাত করবেই এখনই তা বলা ঠিক নয়। খুব ধীরে পৃথিবীর দিকে অগ্রসর হওয়া গ্রহাণুটি কোনো কারণে পথ বদলিয়েও ফেলতে পারে।

তাই বলে সে আশায় বসে নেই বিজ্ঞানীরা। বেনু কিংবা এর মতো গ্রহাণুর কবল থেকে বাঁচতে নানা পরীক্ষা চালাচ্ছেন তারা। এর মধ্যে ব্রুস উইলিস অভিনীত হলিউড ছবি ‘আর্মাগেডন’-এ দেখানো কৌশলও রয়েছে।

আজসারাবেলা/বিজ্ঞান-প্রযুক্তি