প্যারিস প্যাশেনসের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই করল এডু কেয়ার | Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)

প্যারিস প্যাশেনসের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই করল এডু কেয়ার

প্রকাশিত :১৬.০৪.২০১৮, ৬:৫৪ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট: বাংলাদেশিদের অস্ট্রেলিয়াতে মাইগ্রেশন সহায়তায় এডু কেয়ার’এর সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশন প্রতিষ্ঠান প্যারিশ প্যাশেনস বিটল মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। গত ২৭ মার্চ অস্ট্রেলিয়ার সিডনির হোটেল হলিডে ইন-এ অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় এই ইমিগ্রেশন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতা স্মারকটি সই হয়। বাংলাদেশিদের অভিবাসন সংক্রান্ত সঠিক দিক নির্দেশনা এবং আইনি পরামর্শ প্রদানের লক্ষ্যে স্মারক সই হয় বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

এই স্মারক স্বাক্ষরিত অনুষ্ঠানে উভয় পক্ষের প্রধান কর্মকর্তারা, সাংবাদিক এবং কমিউনিটির অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এডু কেয়ারের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান রতন এবং প্যারিশ প্যাশেনস ইমিগ্রেশন লইয়ার্সের বিটল এর পক্ষে পরিচালক মাইকেল জোন্স সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন।

অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন এডু কেয়ার পরিচালক ( অপারেশন) মো. মাসুদুজ্জামান । অনুষ্ঠানটির স্বাগত বক্তব্য দেন এডু কেয়ার প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান রতন । তিনি তার বক্তব্যে স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানটিকে বাংলাদেশি অভিবাসন আগ্রহীদের জন্য একটি ইতিবাচক দিক বলে আখ্যায়িত করেন যা কিনা একটি শক্ত ভিত তৈরি করবে বিশ্বস্ততার প্রতীক হিসেবে। এর পরেই মঞ্চে আসেন একে একে প্যারিশ প্যাশেনস ইমিগ্রেশন লইয়ার্সের পরিচালক মাইকেল জোট, পরিচালক ( অর্থ) ব্লেয়ার কমিন, পরিচালক গোলাম মোস্তফা, পরিচালক মোস্তাসিম বিল্লাহ।

অনুষ্ঠানটির সাংবাদিকদের প্রশ্নোত্তর পর্বের উত্তরে এডু কেয়ার পরিচালক ( অপারেশন) মো. মাসুদুজ্জামান বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে তাদের দৃঢ় প্রত্যয়ের কথা উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশিদের ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত সকল ধরনের আইনি পরামর্শ সততা এবং যুগোপযোগী পরামর্শ প্রদান করবেন যাতে করে বাংলাদেশিরা শত ভাগ নির্ভর করতে পারেন। ইমিগ্রেশন প্রত্যাশীরা অনেক ভাবে প্রতারিত এবং যথোপযোগী সঠিক দিক নির্দেশনা না পাওয়ার দরুন বিভিন্ন ভাবে অর্থ এবং সময় ক্ষেপণ করেছেন বিভিন্ন অদক্ষ মাইগ্রেশন এজেন্ট এজেন্টদের কাছে গিয়ে, যারা কিনা পরবর্তীতে এডু কেয়ার এবং প্যারিশ প্যাশেনস ইমিগ্রেশন লইয়ার্সের কাছে এসে তাদের অভিজ্ঞতা ব্যক্ত করেন কিন্তু তা তখন অনেক দেরি হয়ে যায় সহায়তা প্রদান করার । বাংলাদেশিদের যাতে কোনো ধরনের বিরূপ অভিজ্ঞতা না পোহাতে হয় তার জন্যই এডু কেয়ার এবং প্যারিশ প্যাশেনস ইমিগ্রেশন লইয়ার্সের এই উদ্যোগ যা কিনা কমিউনিটিকে পর্যাপ্ত সহায়তা দিতে পারবে । প্রশ্নোত্তর পর্বে ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত কাজে তাদের সফলতার সাংবাদিকের এক প্রশ্নে প্যারিশ প্যাশেনস ইমিগ্রেশন লইয়ার্সের পরিচালক (অর্থ) ব্লেয়ার কমিন বলেন এ পর্যন্ত ইমিগ্রেশন সাকসেস এর হার তাদের ৮৭% যা কিনা বিশেষ ভাবে উল্লেখযোগ্য ।১৯৯০ এর দশকের শুরুতে বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের ক্রমবর্ধমান হারে বৃদ্ধি পেয়েছে, যা মূলত ডেভিড বিটলের প্রচেষ্টার কারণে ৬০,০০০ এর বেশির সংখ্যা অস্ট্রেলিয়াতে স্থায়ী বাসস্থান করতে সক্ষম হয় , যা অস্ট্রেলিয়াতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে এবং সাধারণত বৃহত্তর ও ক্রমবর্ধমান বিভিন্ন অস্ট্রেলীয় সমাজে সক্রিয়ভাবে জড়িত থাকে। তারা তাদের উচ্চ স্তরের উদ্যোক্তাদের কারণে অস্ট্রেলিয়ায় একটি উল্লেখযোগ্য অর্থনৈতিক অবদান রাখে যা তাদের কর্মসংস্থান বৃদ্ধি করে।

সমঝোতা স্মারকের আওতায় এডু কেয়ার মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাসন প্রত্যাশীদের ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত পরামর্শ ও সহায়তা প্রদান করবে প্যারিশ প্যাশেনস ইমিগ্রেশন লইয়ার্স। এ ছাড়া ২১ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত প্রতিষ্ঠান দুটি বাংলাদেশ এ অবস্থান করবেন এবং বাংলাদেশিদের অভিবাসন নিয়ে কর্মশালার আয়োজন করবেন বলে জানায়।

আজসারাবেলা/অর্থনীতি