কোটা ইস্যুতে ছাত্রলীগকে সতর্ক করেছেন প্রধানমন্ত্রী : কাদের - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)

কোটা ইস্যুতে ছাত্রলীগকে সতর্ক করেছেন প্রধানমন্ত্রী : কাদের

প্রকাশিত :২২.০৭.২০১৮, ৫:৪৬ অপরাহ্ণ

আজ সারাবেলা রিপোর্ট : কোটা সংস্কার আন্দোলনে ছাত্রলীগের নামে বাড়াবাড়ির অভিযোগ পাওয়া গেছে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘পরিষ্কারভাবে তাদের সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।’

রোববার সচিবালয়ে সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘কোটা সংস্কার আন্দোলনে ছাত্রলীগের নামে কিছু বাড়াবাড়ির অভিযোগ আমরা পেয়েছি। কাল (শনিবার) সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সভা শেষে আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা পরিষ্কারভাবে আমার সামনে ছাত্রলীগের নেতাদের বলেছেন, ছাত্রলীগের নামে যেন কোনো বাড়াবাড়ির অভিযোগ তিনি না পান।’

কাদের বলেন, ‘পরিষ্কারভাবে তাদের সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। যাতে ছাত্রলীগের নামে আর কোনো বাড়াবাড়ি, কোনো অভিযোগ যেন আমাদের কাছে না আসে।’

এদিকে শনিবারের প্রধানমন্ত্রীর গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘স্মরণাতীতকালের স্মরণীয় একটা গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠান করেছি। এক বড় অনুষ্ঠান কিন্তু কোথাও শৃঙ্খলা ভঙ্গের একটা নজিরও নেই। আমরা এটা প্রমাণ করেছি যে আওয়ামী লীগই এখনও সবেচেয়ে সুসংগঠিত, সবচেয়ে সুশৃঙ্খল, স্বতঃস্ফূর্ত পার্টি, সবচেয়ে স্মার্টার পার্টি হিসেবে গতকাল আমরা নিজেদের ডেমোনেস্ট্রেট (প্রদর্শন) করেছি।’

জনভোগান্তির কথা চিন্তা করে অনুষ্ঠানটি শনিবার করা হয়েছে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমাদের কর্মীরা চেষ্টা করেছেন মিছিলের পাশে যাতে ট্রান্সপোর্ট চলাচল করতে পারে। সে ব্যাপারে আমরা অত্যন্ত সচেতন ছিলাম। তারপরও যদি জনসাধারণের চলাচলে বিঘ্ন ঘটে যদি কারও দুর্ভোগের কারণ সৃষ্টি করে সেজন্য আমি সকলের কাছে দুঃখ প্রকাশ করছি।’

নির্বাচন প্রসঙ্গে ওবাইদুল  কাদের বলেন, কারও কোনো শর্ত মেনে আগামী নির্বাচন হবে না। নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী। এ নিয়ে কারও সঙ্গে কোনো সংলাপেরও প্রয়োজন নেই বলে সরকার মনে করছে। দেশে এমন কোনো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি যে সংলাপ করতে হবে।

প্রসঙ্গত, শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, চারটি শর্ত পূরণ হলে আগামী নির্বাচন হতে পারে। প্রথমত, বিএনপির চেয়ারপারসনসহ দলের ২০ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে যে ৭৮ হাজার মামলা রয়েছে সেগুলো প্রত্যাহার করতে হবে; দ্বিতীয়ত, নির্বাচনের তফসিলের আগে চলমান জাতীয় সংসদ ভেঙে দিতে হবে; তৃতীয়ত, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী মিলে নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করবে, এতে বৃহত্তম বিরোধীদল হিসেবে বিএনপিকে পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়সহ ৩-৫টি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দিতে হবে এবং চতুর্থত, প্রার্থীরা যেন সব ভোটারের কাছে ভাট চাইতে পারেন, সেই পরিবেশ তৈরি করতে হবে।

আজসারাবেলা/সংবাদ/রই/রাজনীতি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*