সরকারি বিজ্ঞান কলেজে ‘বঙ্গবন্ধুর গল্প শুনি, মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলি’ - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)
Bangabandhur-program-ajsarabela
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন মুক্তিযোদ্ধা মো. শহিদুল ইসলাম। ছবি: আজ সারাবেলা

সরকারি বিজ্ঞান কলেজে ‘বঙ্গবন্ধুর গল্প শুনি, মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলি’

প্রকাশিত :১৮.০৭.২০১৮, ৮:২১ অপরাহ্ণ

ইসলাম রবি: বছরব্যাপী দেশজুড়ে ‘বঙ্গবন্ধুর গল্প শুনি, মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলি’ মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘আজ সারাবেলা’ ও ‘সুচিন্তা ফাউন্ডেশন’।

১৮ জুন বুধবার দুপুরে এই কার্যক্রমের ৩৩তম অনুষ্ঠানটি ছিল রাজধানীর সরকারি বিজ্ঞান কলেজে। সেখানে উপস্থিত ছিল প্রায় দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী।
অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন- সরকারি বিজ্ঞান কলেজের অধ্যক্ষ বনমালী মোহন ভট্টাচার্য। তিনি তার বক্তব্যে আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান এবং শিক্ষার্থীদের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের গুরুত্ব নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন অধ্যাপক বনমালী মোহন ভট্টাচার্য। ছবি: আজ সারাবেলা

বরাবরের মত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন একজন রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা মো. শহিদুল ইসলাম, সহ-সভাপতি কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটি, সভাপতি, ঢাকা মহানগর পূর্ব, জাসদ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে মুক্তিযোদ্ধা জাসদ নেতা শহিদুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৭ মার্চ ভাষণ দিয়ে সমগ্র বাঙালিদের একত্রিত করেছিলেন। সেই সময় আমার মত অনেক মুক্তিযোদ্ধাই যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল বঙ্গবন্ধুর ডাকে। তখন বেঁচে থাকব, না মরে যাব সে ভাবনা একটিবারের জন্যেও আসেনি। শুধু প্রতিজ্ঞা করেছিলাম শরীরের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও এই দেশকে রক্ষা করব পাকিস্তানিদের হাত থেকে।

বাঙালি হিসেবে সবচেয়ে দুর্ভাগ্যের বিষয় হচ্ছে- মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস না জানা। তরুণ প্রজন্মকে, পরবর্তী প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানানোর মত মহান কাজটি করে যাচ্ছেন সুচিন্তা ফাউন্ডেশন ও আজ সারাবেলা। এই কাজটি শুধু তাদের নয়, আমাদের সকলের প্রতিটি বাবা-মায়ের, শিক্ষকদের।

তিনি আরও বলেন, পাকিস্তানের ভূত এখনও এ দেশের অনেকের ঘাঢ় থেকে নামেনি। যারা তখন বাংলাদেশের বিরোধিতা করেছিল তারা এবং তাদের বংশধররা এখনও এদেশে রয়েছে। নানাধরনের ষড়যন্ত্র তারাই করছে। হলি আর্টিজান হামলা তাদের মত মানুষেরাই করেছে। জঙ্গিবাদের মদদ তারাই দিচ্ছে বাংলাদেশে। এই দেশবিরোধী, ষড়যন্ত্রকারীদের, মৌলবাদিদের, জঙ্গিবাদিদের রুখতে হবে। আজকের তরুণরাই এদের বিরুদ্ধে দাঁড়াবে। যে পাকিস্তান বাংলাদেশকে শোষণ করেছিল, সেই পাকিস্তান আজ নিকৃষ্টতম একটি দেশ ও জাতিতে পরিণত হয়েছে।

Bangabandhur-program-2-ajsarabela

অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা ছবি: আজ সারাবেলা

অনুষ্ঠানে সুচিন্তার গবেষণা সেলের পক্ষ থেকে আশরাফুল আলম শিক্ষার্থীদের প্রশ্ন উত্তরের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ এমন নানা বিষয়ে মতবিনিময় করেন।

অনুষ্ঠান শেষে ‘আজ সারাবেলা’র পক্ষ থেকে তেজগাঁও সরকারি বিজ্ঞান কলেজের অধ্যক্ষ বনমালী মোহন ভট্টাচার্যের হাতে ‘বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী’, সিআরআই থেকে প্রকাশিত তিন পর্বের কমিক নভেল ‘মুজিব’ ও ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের লোগো সম্বলিত ‘মগ’ তুলে দেন মুক্তিযোদ্ধা মো. শহিদুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ‘আজ সারাবেলা’র সম্পাদক জববার হোসেন। সমন্বয়ক ছিলেন রবিউল ইসলাম রবি ও সহ-সমন্বয়ক সিদ্দিক আশিক।
মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক এই প্রচারাভিযানের মিডিয়া পার্টনার ‘দৈনিক খোলা কাগজ’ ও ‘পরিবর্তন ডট কম’।

আয়োজিত কার্যক্রমের সার্বিক সহযোগিতায় ছিল ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, নীলসাগর গ্রুপ ও নর্দান ইউনিভার্সিটি।

অাজসারাবেলা/সংবাদ/রই/মুক্তিযুদ্ধ/শিক্ষা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*