‘গ্রামের মানুষও সুপেয় পানি এবং পয়ঃনিষ্কাশন সুবিধা পাবে' - Aj SaraBela (আজ সারাবেলা)

‘গ্রামের মানুষও সুপেয় পানি এবং পয়ঃনিষ্কাশন সুবিধা পাবে’

প্রকাশিত :১৯.০৮.২০১৮, ২:২৫ অপরাহ্ণ

আজ সারাবেলা রিপোর্ট : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা দেশকে উন্নয়নের দিকে নিয়ে যাচ্ছি। এই উন্নয়নের ছোঁয়া শুধু উচ্চবিত্ত নয়, নিম্নবিত্তরাও পাবেন। বস্তিবাসীরা এখন ঢাকা শহরে যে ভাড়া দিয়ে একটা কামরায় থাকে সে ভাড়া দিয়ে ২০তলা ফ্লাটে থাকবেন। তারা যাতে ভালভাবে বসবাস করতে পারে আমরা সে ব্যবস্থা করবো। তারা দিনে, সপ্তাহে মাসে যেভাবে পারবে সেভাবে ভাড়া পরিশোধ করবেন।

রোববার সকালে প্যান প্যাসেফিক সোনারগাঁও হোটেল ঢাকা ওয়াসার দাশেরকান্দি পয়ঃশোধনাগার প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

শুধু রাজধানী নয়, গ্রাম পর্যায়ের মানুষও যাতে সুপেয় পানি এবং পয়ঃনিষ্কাশন সুবিধা পায় সে লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘২০০৮ সালে নির্বাচনে জয় পেয়ে ২০০৯ সালে সরকার গঠনের পর দেখলাম, জনগণ প্রতিনিয়ত পানির জন্য হাহাকার করছে। আমরা নিজেরাও ভুক্তভোগী ছিলাম। আমাদের নিজেদেরও পানি কিনে ব্যবহার করতে হয়েছে। যে পানি এক গাড়ির দাম ছিল ১৫০ টাকা, কিন্তু দিতে হতো দেড় হাজার টাকা। এটাই হলো বাস্তবতা।’

রাজধানীর অনেক এলাকাতে একই অবস্থা ছিল জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা যখন ১৯৯৬ সালে সরকার গঠন করি তখন পানি সমস্যা নিরসনে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছিলাম। পানি সমস্যা সমাধানে তড়িৎ সিদ্ধান্ত আমরা গ্রহণ করেছিলাম। কিন্তু তখন সেটা আমরা করতে পারিনি। তবে ২০০৯ সালে এসে আমরা বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ হাতে নেই, এতে করে আমরা দেখতে পাচ্ছি যে, এখন পানির সমস্যা অনেকটাই সমাধান হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন এলাকায় পানির সমস্যা সমাধানে সেনাবাহিনী নামিয়ে তাদের হাহাকার মিটিয়েছি। এই সেনাবাহিনী দিয়ে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় পানির সমস্যা সমাধান আমাদের করতে হয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘ঢাকার ওয়াসা একটি পরিবেশবান্ধব, টেকসই ও গণমুখী পানি সরবরাহের লক্ষ্য বাস্তবায়ন স্থির করে। আমরা প্রথমবার সরকার গঠনের পরেই ওয়াসার পানি কিভাবে আরও বিশুদ্ধ করা যায়, সে ব্যবস্থা হাতে নিয়েছিলাম।’

এ সময় পানির সমস্যা সমাধানে প্রথম সায়দাবাদ ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট-১ নির্মাণ করে দেওয়ার কথাও জানান শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘দ্বিতীয়বার সরকারে এসে আমরা সায়দাবাদ ওয়াটার ট্রিটমেনন্ট প্ল্যান্ট-২ নির্মাণ করি। এভাবে আমরা পানির উৎপাদন ও সরবরাহ বাড়ানো পদক্ষেপ নেই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*