সকল অভিভাবকের প্রতি প্রযোজ্য

জুলফিয়া ইসলাম

সন্তান যে বয়সে কলেজে পড়ে সেটা বয়ঃসন্ধির কাল। তখন সে শাসনের গণ্ডি পেরিয়ে স্বাধীনতার এলাকায় গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে চলে। এসব শুধুমাত্র বাইরের নয়।মনোরাজ্যের খাঁচাছাড়া ডানামেলা। প্রশ্নকাতর মন প্রশ্ন আর তর্কে অধিকারের কথা বলে।বেদনাকাতরতায় ভরা মনে অপমান মর্মভেদী। অল্প প্রীতিতেই জীবন সুধাময়।

এই বয়সেই সন্তান বাবা মাকে মানুষ বলে ভাবতে শেখে,শাসনের কল নয়! কেননা মানুষ হতে গেলে মানুষের সংস্রব এই বয়সেই দরকার। এই বয়সে এদের একটু সন্মানের পদ দিলে এরা মানব সংস্রবের হাতে পড়তে পারে। মনুষ্যত্বের সার আত্মসাৎ করতে পারে।আত্মসন্মানবোধ জাগ্রত হয়ে ওঠে।

পাথরে কাঠিন্য থাকে এটা সত্য তবে পাথর কেটেই ভাস্কর বঁদা রামকিঙ্কর। শব্দের ভাস্কর তো থাকে কথায়। এভাবে যাদের উচিত ছিল ভুতের ওঝা হওয়া। তাদের কখনই উচিৎ নয় সন্তানের মানুষ করার ভার নেওয়া।

লেখক: লেখক ও কথাসাহিত্যিক

আজ সারাবেলা/সংবাদ/সিআ/কলাম