বিশ্বকাপে পাকিস্তানের চেয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে রাখলেন রমিজ রাজা

সারাবেলা রিপোর্ট: ত্রিদেশীয় সিরিজে অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশ। পুরো সিরিজে একের পর এক চোখ ধাঁধানো জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। শেষটা দেখেও অবাক ক্রিকেট বিশ্ব। ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচে বৃষ্টি আইনে ২৪ ওভারে জয়ের জন্য টাইগারদের প্রয়োজন ছিল ২১০ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২২.৫ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে শিরোপা হাতে তুলে নেয় টিম বাংলাদেশ।

এই জয়ের ফলে দীর্ঘ ১০ বছরের আক্ষেপ ঘুচিয়ে প্রথমবারের মতো কোন টুর্নামেন্টের শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ। টাইগারদের এই জয়ের পেছনে অনবদ্য অবদান রাখেন মোসাদ্দেক। ২৪ বলে ২ চার ও ৫ ছয়ে ৫২ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন তিনি। এরই ফলে ম্যাচসেরার পুরস্কার উঠেছে তার হাতে।

ত্রিদেশীয় সিরিজে টিম বাংলাদেশের এমন দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখে নড়েচড়ে বসেছেন ক্রিকেট বোদ্ধারা। প্রসংশায় ভাসাচ্ছেন টাইগারদের। বাদ যাননি বিভিন্ন সময় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ব্যাপারে নেতিবাচক মন্তব্য করে ভক্ত-সমর্থকদের কাছে সামালোচিত রমিজ রাজাও। সাবেক এ পাকিস্তানি ক্রিকেটার মেনে নিয়েছেন বিশ্বকাপে তার দেশের চেয়ে এগিয়েই থাকবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের ব্যাপারে আলোচনা করতে গিয়ে তিনি স্বীকার করে নেন সাম্প্রতিক ফর্ম ও দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ের প্রেক্ষিতে, বিশ্বকাপে বাংলাদেশই এগিয়ে থাকবে। ক্রিকেটের বিশ্ব মঞ্চে দুই দলের একমাত্র সাক্ষাৎ ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপে। সেবার নর্দাম্পটনে খালেদ মাহমুদ সুজনের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে পাকিস্তানিদের ৬২ রানের ব্যবধানে হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

সে ম্যাচের কথা মনে করিয়ে রমিজ বলেন, ‘বিশ্বকাপের মুখোমুখি লড়াইয়ে বাংলাদেশই পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে। এ দুই দল বিশ্বকাপে একবারই মুখোমুখি হয়েছিল, ১৯৯৯ সালে। সে ম্যাচটি অনেক বিখ্যাত কারণ বাংলাদেশ জিতেছিল এবং পাকিস্তানের সে দলটিও ছিলো অনেক শক্তিশালী।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যদি সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স এবং বিশ্বকাপে আগের সাক্ষাতের কথা মাথায় রাখি, তাহলে এটা মানতেই হবে বাংলাদেশই পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে।’

রমিজ রাজা বলেন, ‘সবশেষ এশিয়া কাপে পাকিস্তানকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এমনকি নিজেদের মাঠে ৩-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশও করেছে। তারা পাকিস্তানের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলে। এ কারণে পাকিস্তান দলকে সতর্ক থাকতে হবে। কাগজে কলমে হয়তো বাংলাদেশকে শক্তিশালী ধরা হবে না, তবে তারা নিজেদের দিনে যে কাউকে হারাতে পারে। যে কোন কিছু করার সামর্থ্য তাদের রয়েছে।’

আগামী ৫ জুন লর্ডসে বিশ্বকাপ ইতিহাসে দ্বিতীয়বারের মতো একে অপরের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ এবং পাকিস্তান।

আজসারাবেলা/সংবাদ/রই/খেলাধুলা

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.