ওসি মোয়াজ্জেমের গ্রেফতারি পরোয়ানা যশোরে

সারাবেলা রিপোর্টঃ ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির নির্মম হত্যাকা-ের বহুল আলোচিত সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনের গ্রেফতারি পরোয়ানা যশোরে পোঁছেছে। ওসি মোয়াজ্জেমের বাবার বসবাসের সূত্রে যশোরে তার স্থায়ী ঠিকানা হওয়ায় স্বাভাবিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই জেলা পুলিশের কাছে গ্রেফতারি পরোয়ানা পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) রাতে যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আনসার উদ্দিন বলেন, সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমের যশোরের পৈতৃক বাড়ি ও তার স্বজনরা পুলিশি নজরদারিতে আছেন।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ওসি মোয়াজ্জেমের বাবা ঝিনাইদহের বাসিন্দা হলেও কয়েক যুগ আগেই যশোর শহরের রায়পাড়ায় জমি কিনে বাড়ি তৈরি করেন। ওই বাড়িতেই শৈশব কাটে মোয়াজ্জেমের। তবে চাকরির সুবাদে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া এ বাড়িতে আসেন না মোয়াজ্জেম। যশোরের বাড়িটিতে এখন তার দুই ভাই ও এক বোন মায়ের সঙ্গে বসবাস করেন। ঈদের আগে এ স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেন মোয়াজ্জেম। গ্রেফতারি পরোয়ানা আসায় বাড়িটি ও তার স্বজনদের নজরদারিতে রাখা হয়েছে।

গত ৬ এপ্রিল ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুনে ধরিয়ে দেয় বোরকা পরিহিত কয়েকজন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে তার মৃত্যু হয়। এর কয়েকদিন আগে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ জানাতে সোনাগাজী থানায় যান নুসরাত।

থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম এ সময় নুসরাতকে আপত্তিকর প্রশ্ন করে বিব্রত করেন এবং তা ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। ওই ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হলে আদালতের নির্দেশে সেটি তদন্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পিবিআই গত ২৭ মে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিলে ওই দিনই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। পরোয়ানার জারির পর থেকে লাপাত্তা আলোচিত এই পুলিশ কর্মকর্তা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.