বিসিএসআইআর স্কুলে ‘বঙ্গবন্ধুর গল্প শুনি, মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলি’

সারাবেলা প্রতিবেদক: ‘আজ সারাবেলা’ ও ‘সুচিন্তা ফাউন্ডেশন’ আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধুর গল্প শুনি, মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলি’ শীর্ষক দেশজুড়ে, বছরজুড়ে কার্যক্রমের এবারের আয়োজন ছিল ৫ মে (রোববার) সায়েন্স ল্যবরেটরির বিসিএসআইআর বিদ্যালয়ে। অনুষ্ঠানে অংশ নেয় বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থী।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন স্কুলটির প্রধান শিক্ষক ড. মো. ইদ্রিস আলী। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর গল্প শুনব মানেই মাটি ও মানুষের কথা শুনব। তিনি মৃত্তিকা সংলগ্ন ছিলেন বলেই এদেশের এত বড় নেতা হতে পেরেছিলেন। তিনি এদেশের মাটি ও মানুষকে বুঝতেন। এ দেশের মানুষের মুক্তি আন্দোলন তার স্বপ্ন আর সংগ্রামের পথেই হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বেই আজ আমরা স্বাধীন দেশের নাগরিক। আমাদের স্বাধীন অস্তিত্ব নিয়ে সম্মানের সঙ্গে কাজ করে যেতে পারছি। বঙ্গবন্ধুর মত মহান মানুষটিকে জানতে হবে, ধারণ করতে হবে চেতনায় ও অস্তিত্বে।

বাংলাদেশ কৃষকলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব মো. মাকসুদুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবদ্দশায় প্রায় ১৪ বছর জেলে ছিলেন তিনি। শুধুমাত্র দেশ ও দেশের মানুষের জন্য আন্দোলন, প্রতিবাদ করায়। বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ, ২৫ই মার্চের কালো রাত, স্বাধীনতা যুদ্ধের অনেক প্রামাণ্যচিত্র, সেসময় পত্রিকায় প্রকাশিত অনেক প্রতিবেদন তোমরা পাবে গুগল, ইউটিউবে।

তিনি আরো বলেন, ১০ জানুয়ারি দেশে ফিরে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, আমি বাঙালি, আমি মানুষ, আমি মুসলমান, একবার মরি দুই বার মরি না। আমার মৃত্যু আসলে আমি হাসতে হাসতে যাব, আমার বাঙালি জাতিকে অপমান করে যাব না। যাবার সময় বলে যাব ‘জয় বাংলা’, স্বাধীন বাংলা, বাঙালি আমার জাতি, বাংলা আমার ভাষা, বাংলার মাটি আমার স্থান।

তিনি সকল ধর্মের মানুষের অধিকার রক্ষার ব্যাপারে সচেতন ছিলেন। যে মানুষ সকলের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, সকলের উচিত দল মতের ঊর্ধ্বে গিয়ে তাকে সম্মান করা।

সব শেষে কেন দেশজুড়ে, বছরজুড়ে মুক্তিযুদ্ধকে স্মরণ করতে হবে, ধারণ করতে হবে শিক্ষার্থীদের মাঝে তা ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন ‘আজ সারাবেলা’ এর সম্পাদক জব্বার হোসেন।

অনুষ্ঠান শেষে ‘আজ সারাবেলা’ ও সুচিন্তা’র পক্ষ থেকে প্রধান শিক্ষকের হাতে ‘বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও সিআরআই থেকে প্রকাশিত তিন পর্বের কমিক নভেল ‘মুজিব’ তুলে দেন ‘আজ সারাবেলা’র সম্পাদক জববার হোসেন । উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনাও করেন তিনি।

আয়োজিত কার্যক্রমের সহযোগিতায় ছিল সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড।

আজসারাবেলা/সংবাদ/রই/মুক্তিযুদ্ধ

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.