স্বামীর ভগ্নিপতি’র যৌন উৎপীড়নে  জীবন দিলো সুবর্ণা রানী

গোল চিহ্নিত অভিযুক্ত অঞ্জন মণ্ডল (উপরে), সুবর্ণা রানী মণ্ডল ও হৃদয় মণ্ডল (নীচে)

সারাবেলা রিপোর্টঃ মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়িতে এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বৃহস্পতিবার উপজেলার বালিগাঁও ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামে মৃত অনিল মন্ডলের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে মৃত অনিল মন্ডলের ছেলে হৃদয় মন্ডলের স্ত্রী সুবর্ণা রানী মন্ডল (২২) ঘরের চালার সঙ্গে গলায় শাড়ি পেচিয়ে আত্মহত্যা করে।

নিহতের পরিবারের পক্ষে থেকে বলা হচ্ছে সুবর্ণাকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করা হয়েছে। সুবর্ণার মা রেখা রানী মন্ডল বলেন, গত দেড় বছর আগে আমার মেয়ের সাথে হৃদয় মন্ডলের বিবাহ হয়। বিয়ের ৩-৪ মাস পরে হৃদয় মন্ডল বিদেশ চলে যায়।

সে সময় থেকে হৃদয় মন্ডলের  মেজো বোনের স্বামী অঞ্জন মন্ডল আমার মেয়েকে বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছে।উত্যক্তের এক পর্যায়ে অঞ্জন মন্ডল ধর্ষণের চেষ্টাও করে। এ ঘটনা আমাকে বললে আমি আমার জামাতা হৃদয় মন্ডলকে অবহিত করি। কিন্তু তারা বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে নেয়নি, হাসাহাসি করে।

তিনি আরও বলেন, অঞ্জন মন্ডল আমার মেয়েকে বিভিন্ন সময় বিয়ের কথা বলতো এবং পালিয়ে যাওয়ার কথা বলতো। আমার মেয়ে বরাবরই স্বামী অনুরক্তা।

সুবর্ণা  তার স্বামীকে এ বিষয়ে জানালে তিনি সুবর্ণা কে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করতো বলেও জানা যায়।  এর সূত্র ধরে সুবর্ণা আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি করছে তার পরিবার।

মেয়ে স্টোক করেছে বলে সুবর্ণার মাকে জানানো হলে বাড়ি গিয়ে তারা জানতে পারেন সুবর্ণা আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় সুবর্ণা রানী মন্ডলের মা রেখা রানী মন্ডল বাদী হয়ে টঙ্গিবাড়ি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ বিষয়ে টঙ্গিবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ মো. আওলাদ হোসেন মুফোফোনে আজ সারাবেলাকে জানান, তার স্বামীর সঙ্গে কথা হলে তিনি তার বোনের স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগটি অস্বীকার করেন।সুবর্ণা তাকে কখনোই এমন কিছু জানাননি বলে জানান।

ওসি আওলাদ হোসেন আরো বলেন, এ ঘটনায় ভিকটিমের পক্ষ থেকে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষটি তদন্তাধীন রয়েছে। যদি এমন কোন ধরনের বিষয় পাওয়া যায় তবে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। ইতিপূর্বেও আমরা এ ধরণের বিষয়ের আইনী সহায়তা দিয়েছি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.