চোরের মায়ের বড় গলা!

মোহাম্মদ এ আরাফাত

বাংলাদেশে কোন দুর্নীতি হচ্ছে না -এ কথা বলা যাবে না। বিগত দিনগুলোতে অগণতান্ত্রিক ও সামরিক স্বৈরশাসক ‘জিয়া-এরশাদ’ এবং স্বাধীনতা বিরোধী দুষ্টুচক্র  যে দুর্নীতির সংস্কৃতি চালু করে গেছে তা সহজেই পুরোপুরি নির্মূল করা সম্ভব নয়। শেখ হাসিনার সরকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই ঘোষনার পরও সমাজের বিভিন্ন স্তরে দুর্নীতি হচ্ছে- এটাই বাস্তবতা!

তবে দুঃখ হয়, খুবই লজ্জা লাগে, যখন দেখি মিস্টার টেন পার্সেন্ট হিসেবে কু-খ্যাত   এর শিষ্যরা দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলে, যাদের আমলে বাংলাদেশ দুর্নীতিতে হ্যাটট্রিক করেছিল, চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। যাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নিজেই বিদেশে টাকা পাচারের মামলায় আদালতে দন্ডিত এবং যার বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআই এর এজেন্ট এসে সাক্ষ্য দিয়ে গেছে। শুধু তাই নয়, যাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান নিজেই একজন ঋণখেলাপি, যাদের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার নাইকো সংক্রান্ত ‘দুর্নীতি’ কানাডার আদালতে প্রমাণিত, যারা এতিমের টাকা লুটপাট করে খায়, বিদ্যুতের স্বপ্ন দেখিয়ে কোটি মানুষকে অন্ধকার থেকে আরো অন্ধকারে ঠেলে দিয়ে বিদ্যুতের বদলে খাম্বা দিয়েছিল সান্তনা দিতে, তারা যখন দুর্নীতির কথা বলে, তখন সত্যিই লজ্জা লাগে।

সেই হাওয়া ভবনের দুর্নীতির বরপুত্রের শিষ্যরা আজ বড় গলায় কথা বলে! অতীতকে পাথরচাপা দিয়ে নিজেদের পাপ মোচন করতে তাদের অনেক তৎপরতার স্বাক্ষী আছে দেশবাসী। সত্যকে যে মিথ্যার চাদরে ঢাকা যায় না তাদের চেয়ারপার্সনের কারাবাস এটাই প্রমাণ করে।তবু তাদের মুখে লাগাম দেবার যেন কোন অবকাশ নেই। এখান থেকেই  ‘চোরের মায়ের বড় গলা’এ প্রবাদের গুরুত্ব অনুধাবন করতে সহজ হয়।

লেখক: বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক ও রাজনীতি বিশ্লেষক।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.