নতুন ফুটেজে রিফাতের ওপর হামলার দৃশ্য (ভিডিও)

সারাবেলা রিপোর্ট: বরগুনায় রিফাত শরীফ হত্যার ঘটনায় সিসিটিভি’র নতুন ফুটেজ পাওয়া গেছে। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে রিফাতের ওপর হামলার ঘটনা ও হামলাকারীদের চেহারা স্পষ্ট। হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী নয়ন বন্ড হলেও হত্যাকাণ্ডে সক্রিয় ছিল রিফাত ও রিশান ফরাজীসহ আরও ১৫-২০ জন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুকরা জানিয়েছেন, ঘটনার দিন ২৬ জুন সকাল থেকেই বরগুনা সরকারি কলেজের সামনের সড়কে অবস্থান নেয় নয়ন বন্ড বাহিনী। সকাল ১০টা ৪মিনিটের সময় কলেজের ভেতর থেকে রিফাত ফরাজীর সঙ্গে রায়হান, রাব্বি আকন,মুছাসহ ৬ জন বের হয়ে ক্যালিক্স একাডেমির সামনে অবস্থান নেয়। সেখানে আগে থেকেই অবস্থান নিয়েছিল নয়ন,রিশান ফরাজী ও তাদের সহযোগীরা। ১০টা ৫মিনিটের দিকে ক্যালিক্স একাডেমির সামনে থেকে রিশান তার এক সহযোগীকে নিয়ে কলেজের মূল ফটকের পাশের পকেট গেটের সামনে অবস্থান নেয়। এরপর কলেজের ভেতরে ঢুকে রিফাতকে মারধর শুরু করে। এঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ পাওয়া যায়নি।

নতুন ফুটেজে দেখা গেছে, রিফাত ফরাজী কলেজ গেটে এসে রিফাত শরীফকে কলেজ থেকে বের করে পূর্ব দিকে নেওয়ার ইশারা দেয়। ১০টা ১২ মিনিটের সময় কলেজের পকেট গেট দিয়ে রিফাতকে মারতে মারতে বের করে আনা হয়। ১০টা ১৩ মিনিটের সময় রিফাত ও রিশান ফরাজী তাকে মারতে মারতে ক্যালিক্স একাডেমির সামনে নয়নের কাছে নিয়ে যায়। এসময় রিফাতের স্ত্রী মিন্নিও তাদের পেছন পেছন যান। সেখানে নয়নের সঙ্গীরা তাকে এলোপাথাড়ি কিল ঘুষি মারতে থাকে। মিন্নি তাদের থামানোর চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে রিফাত ফরাজী পূর্ব দিকে দৌড়ে গিয়ে দু’টি রামদা নিয়ে আসে। একটি রামদা নয়নের হাতে তুলে দেয়, অন্যটি দিয়ে নিজেই রিফাতকে কোপাতে শুরু করে। এসময় মিন্নি হত্যাকারীদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলেও নয়ন ও রিফাত ফরাজী রিফাতকে এলোপাথাড়ি কোপাতে থাকে। এসময় নয়নের একটি কোপ রিশানের হাতে লাগে। ১০টা ১৫ মিনিটের দিকে রামদা হাতে নিয়ে কলেজ রোডের পশ্চিম দিকে চলে যায় রিফাত ফরাজী, নয়নসহ বাকিরা। তাদের পেছনে আহত অবস্থায় কয়েকজন রিশানকে নিয়ে যেতে দেখা যায়। এসময় রাস্তায় উপস্থিত জনতা দাঁড়িয়ে ঘটনা দেখলেও সহযোগিতা করতে এগিয়ে আসেনি।

প্রসঙ্গত, ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে রিফাত শরীফকে। গুরুতর আহত রিফাতকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওইদিন বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

রিফাত হত্যা মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। এছাড়া এজাহারভুক্ত ৫ জন ও হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ৬ জন হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

আজ সারাবেলা/সংবাদ/সিআ/জাতীয়/অপরাধ/সারাদেশ

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.