শিরোপা জিততে ২৪২ দরকার ইংল্যান্ডের

সারাবেলা রিপোর্ট: শুরুতেই মার্টিন গাপটিল আউট ভেবে ভো দৌড় দেন আর্চার। কিন্তু আম্পায়ার সাড়া দেননি। পরেই আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্ত রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান হেনরি নিকোলাস। মনে হচ্ছিল দিনটা নিউজিল্যান্ডের। কিন্তু ভাগ্য পক্ষে থাকলেও সুবিধা নিতে পারেনি কিউইরা। লর্ডসে ৮ উইকেট হারিয়ে তুলতে পেরেছে ২৪১ রান।

শুরুতে আম্পায়ার ভুল থেকে বাঁচলেও পরে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তও বিপক্ষে গেছে কিউইদের। গাপটিল শুরুতে হতাশ করে ফেরেন। কেন উইলিয়ামসন আর নিকোলাস ৭৪ রানের জুটি গড়ে আউট হন। আম্পায়ারের ভুলে আউট হন কিউইদের বড় ভরসা রস টেইলর। ধাক্কার পর ধাক্কা সামলে নিউজিল্যান্ড বড় লক্ষ্য দিতে পারেনি ব্লাক ক্যাপসরা। শিরোপা জিততে বোল্ট-ফার্গুসনদের এই রান এখন আটকাতে হবে।

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে কিউইদের ডুবিয়েছে তাদের ওপেনিং জুটি। নিজেদের প্রথম ম্যাচে কেবল একশ’ ছাড়ানো জুটি পান কিউই ওপেনাররা। আর কোন ম্যাচে পঞ্চাশ ছাড়াতে পারেননি তারা। ফাইনাল ম্যাচে দলের ২৯ রানে মার্টিন গাপটিল ফেরেন। বিশ্বকাপের চূড়ান্ত ফ্লপ গাপটিল ফাইনালে করেন ১৯ রান।

ধাক্কা সামলে কেন উইলিয়ামসন ৩০ রান করে ফেরেন। প্লাঙ্কেটের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন কেন উইলিয়ামসন। কিন্তু আম্পায়ার আউট দেননি। রিভিউ নিতেও দেরি করেননি ইংল্যান্ড অধিনায়ক। আউট হয়ে ফিরে যেতে হয় কিউই অধিনায়ককে। ফেরার আগে বিশ্বকাপের এক আসরে অধিনায়ক হিসেবে সর্বোচ্চ ৫৭৮ রান করেন তিনি। তার আউটের ১৫ রানের ব্যবধানে ৫৫ রান করে ফেরেন ওপেনার হেনরি নিকোলাস। দলের রান তখন ১১৮।

নিউজিল্যান্ড রস টেইলর এবং টম ল্যাথামে ভরসা করতে শুরু করে। টেইলর অন্য দিনের মতো দলকে ভরসা দিয়েও যাচ্ছিলেন। কিন্তু আম্পায়ারের দায়িত্বে থাকা ইরাসমাসের ভুল লেগ বিফোরে কাটা পড়েন রস টেইলর। তাকে আউট দেওয়া বলটা স্টাম্প মিস করে। তার সম্ভাবনার ইনিংস থামে ১৫ রানে। নিউজিল্যান্ড ১৪১ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বড় চাপে পড়ে যায়। এরপর জিমি নিশাম সেট হয়ে দলের ১৭৩ রানে ফেরেন। নিজে করেন ১৯ রান। সেখান থেকে কিউইরা ২৪১ রান পেয়েছে টম ল্যাথামের ব্যাটে ভর করে।

নিউজিল্যান্ডের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ল্যাথাম ৪৭ রান করে আউট হন। তার সঙ্গে নিশাম কিংবা গ্রান্ডহোমদের কেউ একজন দাঁড়াতে পারলে আরও কিছু রান হয়তো বেশি পেতো ব্লাক ক্যাপসরা। গ্রান্ডহোমও সেট হয়ে ১৬ রান করে ফেরেন। সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে গুড়িয়ে দেওয়া ওকস এ ম্যাচেও ছিলেন দুর্দান্ত। তিনি ৩ উইকেট তুলে নেন। লিয়াম প্লাঙ্কেট নেন তিন উইকেট। জোফরা আর্চার ও মার্ক উড একটি করে উইকেট নিলেও দারুণ বোলিং করেন।

আজসারাবেলা/সংবাদ/রই/খেলাধুলা

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.